আউটসোর্সিং খাতে সব রকম সহযোগিতা প্রয়োজন

আউটসোর্সিং নিয়ে এখন আমাদের তরুণদের মধ্যে অনেক আশা এবং আমরা সবাই আশাবাদী যে এই খাতে হাজার হাজার তরুণের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। ইতিমধ্যেই শত শত তরুণ এই খাতে কাজ করছে এবং তারা কিছুটা হলেও বৈদেশিক মুদ্রা বাংলাদেশে নিয়ে আসছে। একই সঙ্গে তাদের নিজেদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেও আরো অন্যদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করছে। তাই আউটসোর্সিং সেক্টরকে সব রকমের সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে।
চলতি বাজেটে আউটসোর্সিং সেক্টরের উপর কোনো করারোপ না করা হলেও নতুন বাড়তি তেমন কোন সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়নি। তবে অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতায় ই-কমার্সের ব্যপারে কিছু আশাবাদ পাওয়া গেছে এবং ইন্টারনেটকে ঢাকার বাহিরে গ্রামাঞ্চলেও নিয়ে যাওয়ার কথা শোনা গেছে। তাই আউটসোর্সিং নিয়ে কিছুটা আশার আলো দেখতে পাচ্ছি।
বেসিস নেত্রীবৃন্দের উচিত আউটসোর্সিং নিয়ে সরকারের সঙ্গে খুব সিরিয়াসলি দেন-দরবার করা এবং যেসব তরুণ এদিকে কাজ করছে তাদেরও উচিত নিজেদের সংগঠিত হয়ে একটা ক্যাম্পেন শুরু করা। ফেইসবুকের কল্যাণে এখন যোগাযোগ রক্ষা করা আগের মতো কঠিন নয়। শুধু দরকার কিছু নিবেদিত প্রাণ তরুণ-তরুণীর যারা এই জিনিস গুলোকে সবার সামনে তুলে ধরার জন্য চেষ্টা করবে।

About কমপিঊটার পাগল

একটি উত্তর দিন