ঢাবির সোনার ছেলেদের কার্মকাণ্ড

আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স সমাপ্তকারী একজন ছাত্র। মাস্টার্সের ক্লাস এখনো শুরু হয়নি। ছাত্র জীবনের শুরু থেকেই আমি কোন ধরণের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলাম না। একজন ছাত্রের মূল দায়িত্ব পড়ালেখা- এই নীতিবাক্য মাধায় ধারণ করে পুরো ছাত্রজীবন কাটিয়ে দিব এরকমই ছিল আমার চিন্তা-ধারা। যার ফলে কোন ধরেণের ছাত্র সংগঠনই আমাকে তাদের দলে ভেড়াতে ব্যর্থ হয়। তবে তারা ব্যর্থ হলেও আমার কোন ক্ষতি করেনি।
কিন্তু হায়! বিধি বাম। Nutral দের জন্য ধরা সংকীর্ণ। আমার শিক্ষা জীবন শুরু হয় মাদরাসায়। সেখান থেকেই মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হই। ফলে আমার মাঝে স্বভাবতই ধর্মীয় ভাবটা একটু খোলামেলা। আর সেই ধর্মীয় মূল্যবোধই আমার কাল হলো। গতকাল রাত আনুমানিক ১২.৩০ টার সময় ধর্মনিরপেক্ষতার ধ্বজাধারী একদল সোনার ছেলে আমার মহসিন হলস্থ রুমে হামলা করে। তারা প্রথমে আমাকে শিবির হিসেবে প্রমাণ করার চেষ্টায় লিপ্ত হয়। কিন্তু তাতেও তারা ব্যর্থ হয়। সবশেষে তারা ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ- কর্তৃক প্রকাশিত একটি বই পায় যেটি আমার একাডেমিক কোর্স রিলেটেড। কিন্তু তারা সেটিকেই শিবিরের বই মনে করে আমাকে শিবির প্রমানিত করার চেষ্টা চালায়। তখন বুঝাতে চেষ্টা করলাম যে, ইসলামিক ফাউন্ডেশন সরকারী প্রতিষ্ঠান। এটি কোন দলীয় প্রতিষ্ঠান নয়। তারপরও তারা সেটিকেই জের ধরে সেই রাতেই (১২.৪৫) আমাকে জোরপূর্বক হল ছাড়তে বাধ্য করে। এখন আমি এক অনিশ্চিত পথের যাত্রী। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন…

About পথের সন্ধানে ...

একটি উত্তর দিন