২০১৮ সালের মধ্যে রাজশাহীতে ‘বরেন্দ্র সিলিকন সিটি’

২০১৮ সালের মধ্যে রাজশাহীতে ‘বরেন্দ্র সিলিকন সিটি’

cilicon_cityশিক্ষা নগরী রাজশাহীতে ৩১ একর জায়গায় ২৩৮ কোটি টাকা ব্যয়ে স্থাপন করা হচ্ছে ‘বরেন্দ্র সিলিকন সিটি’। যেখানে ১৪ হাজার তরুণ-তরুণীর প্রযুক্তিনির্ভর কর্মসংস্থান হবে।
জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায়  সিলিকন সিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন একনেক চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, একনেক সভায় রাজশাহীতে ‘বরেন্দ্র সিলিকন সিটি’ প্রকল্পটি উত্থাপিত  হলে তা নীতিগত অনুমোদন পায়। এ প্রকল্প বাস্তবায়নে সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২৩৮ কোটি টাকা। ২০১৮ সালের মধ্যে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।
বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের জানান, ২০১৮ সালের মধ্যে দেশের ২ হাজার ৬০০ ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারকে ফাইবার অপটিক ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হবে। এজন্য ১ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ইনফো-৩ প্রকল্পও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজশাহীর রাজপাড়া থানার বুলনপুর এলাকায় গড়ে তোলা হবে বরেন্দ্র সিলিকন সিটি।  আগামী বছরের প্রথমদিকে সিটির অবকাঠামোগত কাজ শুরু হবে বলে গত অক্টোবরে জানিয়েছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিকো ও সান হোজে-এই দুই শহরের মাঝামাঝিতে ৩০০ বর্গমাইল এলাকাজুড়ে গড়ে ওঠা সিলিকন ভ্যালি ইন্টারনেট সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত বিশ্বব্যাপী। সিলিকন ভ্যালির আদলে গড়ে তোলা হবে ‘বরেন্দ্র সিলিকন সিটি’।
গুগল, ফেইসবুক, ইয়াহু, অ্যাপল, ইনটেল, এএমডি, এইচপি, ওরাকল, অ্যাডবির মতো বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যালয় এই সিলিকন ভ্যালিতেই। সেখানে রয়েছে তুলনামূলকভাবে ছোট কয়েকশ’ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন