১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে বরিশালে শুরু হচ্ছে বিসিএস ডিজিটাল এক্সপো বরিশাল ২০১২

১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে বরিশালে শুরু হচ্ছে বিসিএস ডিজিটাল এক্সপো বরিশাল ২০১২


তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের প্রধান সংগঠন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি, বরিশাল শাখার উদ্যোগে আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ দিনব্যাপী আয়োজন করছে বরিশালের বৃহত্তম কম্পিউটার মেলা ‘বিসিএস ডিজিটাল এক্সপো বরিশাল ২০১২’। প্রথমবারের মতো ধান নদী খালের বরিশালে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিলের সহযোগিতায় বিসিএস এর বরিশাল শাখা এ আয়োজন করছে। ১৩-১৭ ফেব্রুয়ারি সময়কালে বরিশাল ক্লাবে অনুষ্ঠিত এ প্রদর্শনীর শ্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে ‘ডিজিটাল শিক্ষাই ডিজিটাল বাংলাদেশের ভিত্তি’। প্রদর্শনীতে দেশী-বিদেশী ২৫ টি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান তাদের প্রযুক্তি পণ্য প্রর্দশন করবে। প্রর্দশনীতে পণ্য প্রদর্শন ছাড়াও রয়েছে সাস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সেমিনার, আলোচনা সভা, কুইজ, প্রদর্শনী বিতর্ক, তথ্যপ্রযুক্তি সচেতনতা কর্মসূচি, শিশুতোষ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, ফ্রি ইন্টারনেট জোন, ফ্রি গেমিং জোনসহ নানা আয়োজন। বরিশাল ক্লাবে অনুষ্ঠিতব্য ৫ দিনব্যাপী এই প্রদর্শনীর বিভিন্ন দিক নিয়ে আজ সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

বিসিএস বরিশাল শাখা অফিসে অনুষ্ঠিত এই সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি জনাব মো: ফয়েজউল্যাহ্‌ খান, মহাসচিব জনাব মো: শাহিদ-উল-মুনীর, প্রদর্শনীর কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী এবং বিসিএস এর কোষাধ্যক্ষ জনাব মো: জাবেদুর রহমান শাহীন, প্রদর্শনীর আহ্বায়ক ও বিসিএস বরিশাল শাখার সেক্রেটারি জনাব শাহ্‌ বোরহান উদ্দিন আদনান এবং বিসিএস শাখা কমিটির চেয়ারম্যান জনাব মনোয়ার হোসেন হারুনসহ সমিতির কর্মকর্তাবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় ১৩ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০.০০ মিনিটে ‘বিসিএস ডিজিটাল এক্সপো বরিশাল ২০১২’ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর বেলা ১ টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে এবং ১৪-১৭ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

প্রর্দশনীতে তথ্যপ্রযুক্তির দেশী-বিদেশী জনপ্রিয় ও সুপরিচিত ব্র্যান্ড, আমদানিকারক, প্রস্তুতকারক ও সরবরাহকারী ২৫ টি প্রতিষ্ঠান এ প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করছে। এতে তারা মূলত কম্পিউটার হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার পণ্যসামগ্রী, নেটওয়ার্ক ও ড্যাটা কমিউনিকেশন, টেলিকম সেবা ও পণ্যসামগ্রী, মাল্টিমিডিয়া, আইসিটি শিক্ষা উপকরণ, ল্যাপটপ, পামটপ, ডিজিটাল জীবনধারাভিত্তিক প্রযুক্তি ও পণ্য ইত্যাদির উন্নত ও হালনাগাদ সংস্করণ প্রদর্শন করবে। প্রায় ২০,০০০ বর্গফুট স্থান জুড়ে ৩০টি স্টলে এসব প্রযুক্তি সামগ্রী প্রদর্শিত হবে।

বরিশালের বৃহত্তম এই কম্পিউটার মেলাকে বৈচিত্র্যময় করতে পণ্য প্রদর্শনের পাশাপাশি শিশুদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, বিতর্ক এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। প্রদর্শনীর প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬ টায় দর্শনার্থীদের জন্য থাকছে জমকালো সাস্কৃতিক অনুষ্ঠান। প্রদর্শনীর তৃতীয় দিন ১৫ ফেব্রুয়ারি বুধবার সকাল ১১টায় রয়েছে প্রদর্শনী বিতর্ক। ১৬ ফেব্রুয়ারি রয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি সচেতনতা কর্মসূচি, প্রদর্শনী বিতর্ক এবং বিকালে অনুষ্ঠিতব্য শিশুদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বয়স ও বিষয়ভিত্তিক তিনটি গ্রুপে স্কুল শিক্ষার্থীরা অংশ নিতে পারবে। প্রতিযোগিতায় গ্রুপ গুলো হলো – ক গ্রুপ (বয়স: ৩-৬ বছর), খ গ্রুপ (৭-১০ বছর) এবং গ গ্রুপ (১১-১৪ বছর)। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য অবশ্যই রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। মেলা চলাকালে মেলা প্রাঙ্গনে বিসিএস এর নিয়ন্ত্রণ কক্ষে ও প্রতিযোগিতার স্থলে এক ঘণ্টা আগে বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।

মেলার প্রবেশ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। বিসিএস এর ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় ‘বিসিএস ডিজিটাল এক্সপো বরিশাল ২০১২’- এর প্রদর্শনীতেও স্কুল শিক্ষার্থীদের পরিচয়পত্র দেখানো সাপেক্ষে বিনামূল্যে প্রবেশের ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়াও মেলার বিক্রিত টিকেট নিয়ে সমাপনী দিনে অনুষ্ঠিত হবে র‍্যাফেল ড্র। আর এতে থাকবে ল্যাটপসহ সমজাতীয় বিভিন্ন আকর্ষণীয় উপহার। এছাড়া প্রদর্শক প্রতিষ্ঠানগুলোর আয়োজনে মেলায় থাকবে বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তি পণ্যের বিশেষায়িত প্রদর্শনী ও কুইজ প্রতিযোগিতা।

মেলার প্লাটিনাম স্পন্সর হিসেবে বিশ্বখ্যাত কম্পিউটার ব্র্যান্ড ডেল, ফুজিতসু, এক্সেসরিজ ব্র্যান্ড লজিটেক এবং এন্টিভাইরাস নরটন; গোল্ড স্পন্সর হিসেবে থাকছে আরেকটি বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড তোশিবা এবং দেশীয় আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড কম্পিউটার সেন্টার (ইউসিসি)। সিলভার স্পন্সর হিসেবে থাকছে দেশীয় মোবাইল এক্সেসরিজ প্রতিষ্ঠান অনিক টেলিকম এবং প্রিন্টার ব্র্যান্ড কনিকা মিনোল্টা। প্রদর্শনীর মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকছে এটিএন বাংলা এবং দৈনিক মতবাদ। টিকেট স্পন্সর ইনফ্রা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট, টিকেট কাউন্টার স্পন্সর এক্সেল টেকনোলজিস লিমিটেড, ভলান্টিয়ার ড্রেস স্পন্সর ইমাম টেলিকম, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা স্পন্সর অমৃত কনজ্যুমারস ফুড প্রোডাক্টস লি: এবং পরিবহন স্পন্সর এসিআই আইটি লি:।

১৭ ফেব্রুয়ারি রাত ৮ টায় এ প্রদর্শনীর সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে।

প্রর্দশণী প্রাঙ্গনে বিসিএসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ মেলার সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। এখান থেকে যে কোন রকমের তথ্য ও সেবা নিতে পারবেন যে কেউ। এ ছাড়াও মেলায় আগত দর্শনার্থী, অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের যে কোন ধরনের সহায়তার জন্য একটি বিশেষ টিম মেলা প্রাঙ্গনে নিয়োজিত থাকবে। মেলায় সাধারণ নিরাপত্তা, লোকচলাচল নিয়ন্ত্রণ, পণ্য বিক্রি এবং টিকেট চেকিং এর জন্য বিশেষ নিরাপত্তা দল সব সময় কাজ করবে।

(সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)

About mehdi

একটি উত্তর দিন