স্যামসাংয়ের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন মুশফিকুর রহিম

স্যামসাংয়ের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন মুশফিকুর রহিম

musfiqটেস্ট ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বাংলাদেশে স্যামসাংয়ের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরের দায়িত্ব পালনকারী প্রথম বাংলাদেশি তারকা ব্যক্তিত্য হচ্ছেন মুশফিকুর। আজ ঢাকায় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।
এখন থেকে বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট দলের অধিনায়ক স্যামসাং মোবাইল, কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক্স এবং আইটি পণ্যের দূত হিসেবে কাজ করবেন। ঘোষণা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্যামসাং বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সি.এস. মুন, জেনারেল ম্যানেজার ইয়ং য়ু লি, হেড অব মোবাইল হাসান মেহদী এবং হেড অব কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড আইটি বদরুল করিম।
অনুষ্ঠানে স্যামসাং বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সি.এস. মুন বলেন, “খেলাধুলা সাধারণ মানুষের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ আর বাংলাদেশে এই চেতনার সবচেয়ে বড় উদ্দীপক হলো ক্রিকেট। ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে মুশফিকুর রহিমের স্যামসাং পরিবারের সদস্য হওয়ার মাধ্যমে নতুন যাত্রা শুরু হলো। আমরা আশা করছি মুশফিকুরের সাথে স্যামসাংয়ের যাত্রা অসাধারণ হবে এবং ‘মি. ডিপেন্ডেবল’ হিসেবে তিনি স্যামসাংয়ের ব্র্যান্ডকে আরো সমুজ্জ্বল করতে সহায়ক হবেন।”
এই উপলক্ষ্যে মুশফিকুর রহিম বলেন, “স্যামসাং শুধুমাত্র প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার জন্যই নয়, বিশ্বব্যাপী খেলাধুলার সাথে সম্পৃক্ততার জন্যও বিশেষভাবে পরিচিত। বিশ্বখ্যাত এই ব্র্যান্ডটির সাথে সম্পৃক্ত হতে পেরে আমি গর্বিত। প্রযুক্তি, ডিজাইন এবং মানের দিক দিয়ে স্যামসাং পণ্য সর্বোত্তম আর সর্বোত্তম পণ্যের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরের দায়িত্ব পেয়ে আমি আনন্দিত।”
২০০৫ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জীবন শুরু করেন মুশফিকুর রহিম। টেস্ট ক্রিকেটে এক ইনিংসে দ্বি-শতক করা প্রথম বাংলাদেশি তিনি। উইকেট কিপার-ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করে ২০১১ সালে তিনি জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেন। বর্তমানে তিনি টেস্ট দলের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে ধারাবাহিকতা প্রদর্শন করায় তিনি ভক্তদের মাঝে “মি. ডিপেন্ডেবল” হিসেবে জনপ্রিয়তা পান। স্যামসাং বাংলাদেশ আশা করছে যে, মুশফিকুর রহিমের ধারাবাহিকতা প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড পরিচয়ে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন