সেপ্টেম্বরে থ্রিজি সরবরাহ করতে যাচ্ছে টেলিটক

সেপ্টেম্বরে থ্রিজি সরবরাহ করতে যাচ্ছে টেলিটক

অনেক প্রতিক্ষার পরেই আগামী সেপ্টেম্বরে গ্রাহক পর্যায়ে তৃতীয় প্রজন্মের (থ্রি জি) সিম সরবরাহ করবে রাষ্ট্রায়াত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক।

থ্রি জি সিম সরবরাহে পুরাতন গ্রাহকদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুজিবর রহমান বুধবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সেপ্টেম্বরের মধ্যেই রাজধানীর তিন লাখের বেশি গ্রাহককে তৃতীয় প্রজন্মের (থ্রি জি) সেবা দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

মুজিবর রহমান আরও বলেন, “১৭ জুলাই নেটওয়ার্ক সোয়াপ করার পর আগামী ২৯ জুলাই থেকে টেস্টে যাবে থ্রি জি। পুরো অগাস্ট মাস পরীক্ষামূলক টেস্ট করার পর সেপ্টেম্বর থেকে সিম সরবরাহ শুরু করা হবে।”

জুলাই থেকে থ্রি জি সিম সরবরাহ করার কথা থাকলেও দেরির কারণ জানিয়ে তিনি বলেন, নতুন প্রযুক্তি হিসেবে এর যন্ত্রপাতি স্থাপন করতে কিছুটা সময় বেশি লাগছে।

থ্রি জি সিম পাওয়ার ক্ষেত্রে টেলিটকের পুরনো গ্রাহকদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে জানিয়ে টেলিটক এমডি বলেন, পাশাপাশি নতুন গ্রাহকদেরও থ্রি জি সিম সরবাহের নানা কৌশল থাকছে।

চলতি মাসের মধ্যেই টেলিটকের থ্রি জি সিম সরবরাহের কৌশল নির্ধারণ করা হবে এবং আগামী ১৫ জুলাই এ নিয়ে পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

যাদের মাসিক মোবাইল ফোন বিল বেশি হয় এবং লটারি বা অন্য অন্য প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পুরনো ব্যবহারকারীদের জন্য সিম সরবরাহের চিন্তা-ভাবনা চলছে বলে টেলিটক কর্মকর্তারা জানান।

টেলিটকের নির্ধারিত প্রক্রিয়ার মধ্যে পুরনো গ্রাহকরা তাদের টু জি সিম পরিবর্তন করে নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকার বিনিময়ে থ্রি জি সিম নিতে পারবেন।

ঢাকার পরই চট্টগ্রামে থ্রি জি সেবা পৌঁছে দেওয়া হবে জানিয়ে মুজিবর রহমান বলেন, শুধু থ্রি জি’র জন্য সারা দেশে ৭০০টি বিশেষ বিটিএস স্থাপন করা হবে, ইতোমধ্যে রাজধানীতে বিটিএস স্থাপন শেষ হয়েছে।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিটিআরসির হিসেবে, গত মে মাস পর্যন্ত টেলিটকের গ্রাহক সংখ্যা ১৩ লাখ ৪২ হাজার।

থ্রি জি সেবার জন্য চার্জ নির্ধারণ ও বিজ্ঞাপনের জন্য বিটিআরসিতে আবেদন করা হয়েছে জানিয়ে মুজিবর বলেন, অনুমোদন দিলেই এ বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে। ২০১৩ সালের শেষের দিকে বড় বড় শহরগুলোতে থ্রি জি সেবা পৌঁছে দেওয়া যাবে বলে আশা করছেন তিনি।

অন্যান্য অপারেটররা বাজারে আসার আগেই রাষ্ট্রায়াত্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে টেলিটক গত মার্চ থেকে ছয় মাস পরীক্ষামূলক থ্রি-জি সেবা দেওয়ার অনুমতি পায়। তবে কারিগরি ও প্রস্তুতির কারণে টেলিটকের থ্রি জি সেবা চালু পিছিয়ে যায়।

সম্প্রতি তৈরি করা থ্রি জি লাইসেন্স প্রস্তাবিত খসড়া নীতিমালায় বলা হয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বরে থ্রি জি স্পেকট্রাম নিলাম হবে। নিলামে অংশ গ্রহণ না করলেও টেলিটককে নিলামের সমপরিমাণ টাকা দিয়ে থ্রি জি স্পেকট্রাম নিতে হবে।

প্রস্তাবিত খসড়া নীতিমালায় বলা হয়েছে, বেসরকারি অপারেটর গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, সিটিসেল, এয়ারটেল ও রবির পাশাপাশি নিলামে বিদেশি প্রতিষ্ঠানও অংশ নিতে পারবে।

থ্রি জি প্রযুক্তির মাধ্যমে উচ্চ গতিতে তথ্য পরিবহন সম্ভব বলে মোবাইল ফোনেই টিভি দেখা, জিপিএসের মাধমে পথ নির্দেশনা পাওয়া, উচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহারসহ ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেওয়া সম্ভব।

About বিদ্যুৎ বিশ্বাস

একটি উত্তর দিন