ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষ হল সিলেট ই-বাণিজ্য মেলা

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষ হল সিলেট ই-বাণিজ্য মেলা

দর্শক সমাগম আর সেমিনারের মধ্য দিয়ে জমে উঠেছে সিলেটে অনুষ্ঠিত ই-বাণিজ্য মেলা। শুক্রবার মেলার দ্বিতীয় দিনে দর্শনার্থীদের উপস্থিতিছিল ব্যাপক। অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের বিভিন্ন পণ্য ও সেবা প্রদর্শণের পাশাপাশি বিভিন্ন অফার অব্যহত রেখেছেন।

গত ৭-৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকাতে দেশের প্রথম ই-বাণিজ্য মেলা সফল ভাবে সম্পন্ন করার পর গত ৪ এপ্রিল বৃহষ্পতিবার থেকে সিলেটে শুরু হয় দেশের দ্বিতীয় ই-বাণিজ্য মেলা ও ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা। ‘ঘরে বসে কেনাকাটার উৎসব’ শ্লোগান নিয়ে আয়োজিত এ মেলা সিলেট স্টেডিয়াম সংলগ্ন মোহাম্মদ আলী জিমনেশিয়ামে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় ও সিলেট বিভাগীয় কমিশনারের পৃষ্ঠপোষকতায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমানে সহায়ক ‘সিলেট ই-বাণিজ্য মেলা ২০১৩ ও ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা’ এর আয়োজক সিলেট জেলা প্রশাসন ও মাসিক ‘কমপিউটার জগৎ’।

মেলার অংশ হিসেবে শুক্রবার বিকেলে জনগনের দোরগোড়ায় ই-সেবা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে বক্তারা বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে এখন অনেকাংশে এগিয়ে গেছে। জেলা প্রশাসন অফিসগুলোতে ই-সার্ভিসের মাধ্যমে এখন সাধারণ জনগণ ঘরে বসে সেবা পাচ্ছেন। মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে জেনে নিতে পারছেন তার আবেদনটি গৃহীত হয়েছে কিনা। ফলে মানুষের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সেবা প্রাপ্তি সহজ হয়ে গেছে।

এছাড়া এদিন সকালে ই-বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। এছাড়া সন্ধ্যায় ইউআইএসসি এর উপর প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়।

মেলায় আসা ব্যবসায়ী আমিনুর রহামন বলেন, মেলায় এসে ভালোই লাগছে। এখানে এসে বুঝতে পারছি ই-বাণিজ্যে বাংলাদেশ অনেকাংশে এগিয়ে গেছে। আগে ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে অনলাইনে পণ্য বা সেবা কিনতে হতো, এখন ডেবিট কার্ডের মাধ্যমেই সেই কাজটি সম্ভব হচ্ছে। এ ধরণের মেলা দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়মিত আয়োজনের প্রয়োজন রয়েছে। তাহলে দেশের ই-বাণিজ্য প্রসারিত হবে। সিলেটে এ ধরণের আয়োজন করায় জেলা প্রশাসন ও কমপিউটার জগৎকে অনেক অভিনন্দন জানাই।

আগামীকাল (শনিবার) সকাল ১০টায় কুইজ প্রতিযোগিতা ও বেলা ১২টায় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া বিকেল ৩ টায় বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক-বিডিওএসএন এর আয়োজনে ই-কমার্সের খুটিনাটি শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। বিকেলে সাংস্কৃতিক ও সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

তিনদিনব্যাপি এই মেলায় ই-কমার্সের সঙ্গে জড়িত দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্য ও সেবা সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরবে। মেলায় মোট ৪৫টি স্টলসহ ৪৫টি প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্য ও সেবা প্রদর্শন করছে। মেলা উপলক্ষে পণ্য ও সেবা ক্রেতাদের জন্য বিশেষ সুযোগ যেমন থাকবে, তেমনি এ বিষয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে বিভিন্ন ধরণের আয়োজন রয়েছে।

আয়োজকরা জানান, ই-বাণিজ্য মেলার প্লাটিনাম স্পন্সর হিসেবে রয়েছে অনলাইন পেমেন্ট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান এসএসএল কমার্জ ও কমজগৎ টেকনোলজিস। গোল্ড স্পন্সর হিসেবে রয়েছে ই-সুফিয়ানা ও সিজে সফট। মেলার ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট করছে অর্পণ কমিউনিকেশন লিমিটেড।

এ ছাড়া পার্টনার হিসেবে এখনি ডটকম, ক্রিয়েটিভ পার্টনার হিসেবে ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেড, গেমিং জোন পার্টনার হিসেবে এএমডি গিগাবাইট, নলেজ পার্টনার হিসেবে বিডিওএসএন, কমিউনিকেশন পার্টনার হিসেবে সফটকল, ব্লগ পার্টনার হিসেবে সামহোয়্যার ইন ব্লগ ও ওয়েব পার্টনার হিসেবে বাংলানিউজ২৪ ডটকম।

তিন দিনের এ মেলায় অংশ নিচ্ছে এসএসএল কমার্জ, ই-সু ফিয়ানা, কমজগৎ টেকনোলজিস, এখনি ডটকম, বগুড়ার দই, রূপকথার জামদানি, জেডকাইট৯, ওঅনলাইনশপ, অ্যাট২ক্লিকস, বিডিহাট, আপনজোন, ওয়েবশহর (সিটিসেল), অ্যারামেক্স ঢাকা লিমিটেড, জোন ৮৩, বাংলাদেশ পোস্ট অফিস, কাশবন, দোহাটেক সিএ, রাইট ক্লিক সফটওয়্যার, রাবাই অনলাইন, ঐতিহ্য, ইশপসিলেট ডটকম, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি, ইকোমেডিক্স প্রাইভেট লিমিটেড ও সিলেট ওমেন বিজনেস ফোরাম। এছাড়া ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার পক্ষ থেকে সিলেট জেলা  ই-সেবা  কেন্দ্র ও  সিলেট সদর, দক্ষিণসু রমা,  গোলাপগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, জকিগঞ্জ, কানাইঘাট, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, কোম্পানীগঞ্জ, ফেঞ্চুগঞ্জ, বিশ্বনাথ, বালাগঞ্জ ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্রগুলো অংশগ্রহণ করে।

আয়োজকেরা জানান, এবারের মেলাকে সহজে তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য সামাজিক যোগাযোগের সাইট ফেসবুকের মাধ্যমে মেলার বিভিন্ন আপডেট প্রকাশ করা হচ্ছে। আপডেট পেতে www.facebook.com/ECommerceFair ঠিকানার পেজ লাইক করতে হবে। এ ছাড়া মেলার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.e-commercefair.com  থেকেও জানা যাবে প্রয়োজনীয় তথ্য।তিন দিনব্যাপী এ মেলার অনুষ্ঠানাদিwww.comjagat.com ওয়েবসাইটে ইন্টারনেটে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টায় শুরু হয়ে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। হ্রাসকৃত মূল্যে বিভিন্ন পণ্য কেনা যাবে।

এক নজরে সিলেট ই-বাণিজ্য মেলা-২০১৩
স্লোগান    : ঘরে বসে কেনাকাটার উৎসব
স্থান  :  সিলেট জিমনেশিয়াম
তারিখ ও সময়  :  ৪-৬ এপ্রিল ২০১৩, প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত
আয়োজক :   কমপিউটার জগৎ ও সিলেট জেলা প্রশাসন
পৃষ্ঠপোষকতায়  :  তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় ও সিলেট বিভাগীয় কমিশনার
প্লাটিনাম স্পন্সর  :  এসএসএল কমার্জ ও কমজগৎ টেকনোলজিস
গোল্ড স্পন্সর :   ই-সুফিয়ানা ও সিজে সফট
ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট :   অর্পণ কমিউনিকেশন লি:
পার্টনার    ক্রিয়েটিভ পার্টনার : ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেড,
গেমিং জোন পার্টনার : গিগাবাইট, এএমডি
নলেজ পার্টনার : বিডিওএসএন,
কমিউনিকেশন পার্টনার : সফটকল,
ব্লগ পার্টনার : সামহোয়্যার ইন ব্লগ ও
ওয়েব পার্টনার : বাংলানিউজ২৪ ডটকম।
ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা পক্ষ থেকে অংশগ্রহনকারী    সিলেট জেলা ই-সেবা কেন্দ্র, ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র – সিলেট সদর, দক্ষিণসুরমা, গোলাপগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, জকিগঞ্জ, কানাইঘাট, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, কোম্পানীগঞ্জ, ফেঞ্চুগঞ্জ, বিশ্বনাথ, বালাগঞ্জ
অংশ গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান   :  ৪৫ টি

প্রবেশ    সবার জন্য উন্মুক্ত

বার্তা প্রেরক

মোহাম্মদ এহ্তেশাম উদ্দিন মাসুম
সমন্বয়কারী
সিলেট ই-বাণিজ্য মেলা ২০১৩
মোবাইল : ০১৬৭০২২৩১৮৭

About blogger - ব্লগার

একটি উত্তর দিন