শেষ পর্ব :নতুন ওয়েব ডেভলাপারদের জন্য সার্ভার ব্যবস্থাপনা

শেষ পর্ব :নতুন ওয়েব ডেভলাপারদের জন্য সার্ভার ব্যবস্থাপনা

আজকের পর্বে শেয়ার করব সিপ্যানেলের আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়- উইজার্ড চালু করা,ওয়েবমেইলের কিছু অ্যাডভান্সড ফিচা্‌র,সাবডোমেইন তৈরি করা ,ওয়েবসাইটের নিরাপত্তা বাড়ানো নিয়ে।

বিশেষ সংযোজনঃপুর্ববর্তী পর্ব ( নতুন ওয়েব ডেভেলপারদের জন্য সার্ভার ব্যবস্থাপনা পর্ব – ০২) পরতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুনঃ

নতুন ওয়েব ডেভেলপারদের জন্য সার্ভার ব্যবস্থাপনা (পর্ব – ০২)

সিপ্যানেল টিউটরিয়ালের আগের পর্বে ব্যাপকভাবে ব্যবহার হওয়া এবং জনপ্রিয় সার্ভার ম্যানেজমেন্ট অ্যাপ্লিকেশন সিপ্যানেল হোস্টিং কন্ট্রোল প্যানেলে ডাইনামিক/ডাটাবেজ নির্ভর ওয়েবসাইট আপলোড করা, ওয়েবমেইল তৈরি করা, এফটিপি তৈরি করা ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছিল। আজ সিপ্যানেলের আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আলোচনা করা হলো।

প্রেফারেন্স ট্যাব আলোচনা

সিপ্যানেলের মূল অংশের প্রেফারেন্সেস ট্যাবটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এর বিভিন্ন অপশন ব্যবহার করে সহজেই সিপ্যানেল সম্পর্কে ধারণা লাভ করা যায় বা সিপ্যানেলের বর্তমান তথ্যের পরিবর্তন করা যায়।

উইজার্ড চালু করা

এই উইজার্ডে ক্লিক করে সিপ্যানেল সম্পর্কে একটি প্রাথমিক ধারণা লাভ করতে পারেন। এখানে সিপ্যানেলের বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে একটি সহজ ধারণা দেওয়া হয়েছে।

ভিডিও টিউটরিয়াল

এখানে সিপ্যানেলের বিভিন্ন বিষয়ের ওপর কিছু ভিডিও রয়েছে। ভিডিওগুলোতে সিপ্যানেলের নানা অপশন কিভাবে ব্যবহার করতে হবে তা দেখানো হয়েছে।

পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করা

এর মাধ্যমে আপনার সিপ্যানেলের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে পারবেন। এর পরবর্তী তিনটি অপশনে বর্তমান কন্টাক্ট ইনফো পরিবর্তন, ভাষা পরিবর্তন এবং সর্টকোড ব্যবহার করার জন্য ব্যবহার হয়।

ওয়েবমেইলের কিছু অ্যাডভান্সড ফিচার

গত পর্বে ওয়েবসাইটের নামে ই-মেইল তৈরি করা দেখানো হয়েছিল। সাধারণত মেইল ট্যাবের Email Accounts অপশনটি দিয়ে ই-মেইল খোলা হয় এবং webmail অপশনটি দিয়ে কি কি মেইল অ্যাকাউন্ট আছে সেগুলো দেখা যায়। মেইল ট্যাবে Spam Assassin অপশনটি ব্যবহার করে সহজেই মেইলের স্প্যাম মেইল চিহ্নিত করা যায় এবং অনাকাঙ্ক্ষিত মেইল ডিলিট করা যায়।

মেইল ট্যাবের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অপশন হচ্ছে Forwarders ব্যবহার করে POP3 ই-মেইলকে আপনার জি-মেইল, ইয়াহুমেইল বা অন্য কোনো ই-মেইলে ফরওয়ার্ড করতে পারবেন। ধরুন, আপনার প্রতিষ্ঠানের ই-মেইল হচ্ছে info@sportstimebd.com। এই ঠিকানায় কোনো মেইল এলে যেনো আপনার পার্সোনাল ই-মেইলে এক কপি পেয়ে যান, তাহলে আপনার পার্সোনাল ই-মেইলটি Forwarders অপশনে Add Forwarder-এ ক্লিক করে যোগ করে দিন।

Forwarders অপশনের মতো আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অপশন হচ্ছে Auto Responders অপশন। আপনি ইচ্ছে করলে একটি অটো রেসপন্স মেসেজ এখানে তৈরি করে রাখতে পারেন। আপনার POP3 ই-মেইলে মেইল দেওয়ার পরপরই মেইলদাতা আপনার একটি মেসেজ পেতে পারে এই অপশনের মাধ্যমে। অনেক কোম্পানিই এভাবে একটি মেইল তৈরি করে রাখে যা তাদের যোগাযোগকে আরো সহজ করে তোলে।

সাবডোমেইন তৈরি করা

ওয়েবসাইটের সাবডোমেইন, অ্যাডঅন ডোমেইন, পার্কড ডোমেইন তৈরি করার কাজটি করতে পারেন Domain ট্যাবের অপশনগুলো ব্যবহারের মাধ্যমে। আপনার ওয়েরসাইটের সাবডোমেইন করার জন্য subdomains অপশনে ক্লিক করে Create a Subdomain সেকশনে ক্লিক করুন।

আপনার কাঙ্ক্ষিত সাবডোমেইন

সাবডোমেইনের নামটি দিন। ধরুন, আপনার মূল সাইটের ইউআরএলটি হচ্ছে www.shop.com। আপনি চাচ্ছেন এই সাইটের একটি ফোরাম করতে, তাহলে ফোরামের সাবডোমেইনটি হবে forum.shop.com। যখন সাবডোমেইনটি লিখবেন তখন Document root-এ আপনার সাবডোমেইনটির নামে একটি ফোল্ডার তৈরি হবে। forum.shop.com সাবডোমেইনের জন্য আপনার সিপ্যানেলের পাবলিক এইচটিএমএল ফোল্ডারের ভেতরে forum নামের একটি ফোল্ডার তৈরি হবে। আপনার ফোরাম ওয়েবসাইটের সব ফাইল forum ফোল্ডারের মধ্যে রাখলে ফোরাম সাবডোমেইনে ওয়েবসাইটটি দেখতে পাবেন।

ওয়েবসাইটের নিরাপত্তা বাড়ানো

আপনার ওয়েবসাইটের নিরাপত্তা বাড়াতে পারেন সিপ্যানেলের সিকিউরিটি ট্যাবের অপশনগুলো ব্যবহার করে। আপনি ইচ্ছে করলে ওয়েবের বিভিন্ন ফোল্ডার প্রয়োজনমতো Password Protected Directories অপশন ব্যবহার করে লক করে রাখতে পারেন। IP Deny Manager অপশন ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইটের আইপি অ্যাড্রেসের নিরাপত্তা দিতে পারেন। SSL Manager অপশন ব্যবহার করে আপনার সাইটের অধিক নিরাপত্তা দিতে পারেন। SSL CERTIFICATES কিনে ব্যবহার করতে হয়। আমরা যদি আমাদের http://www.shop.com ওয়েবসাইটে এসএসএল সার্টিফিকেট যুক্ত করি তাহলে আমাদের ওয়েব অ্যাড্রেসটি হবে https://www.shop.com। সাধারণত যেসব সাইটে অর্থ লেনদেন হয়। সেসব সাইটে এসএসএল সার্টিফিকেট ব্যবহার করা হয়। যেমন- ই-কমার্স সাইটগুলো, পেপাল, অ্যামাজান, ইবে, আবার বড় বড় সাইটেও এসএসএল সার্টিফিকেট ব্যবহার করে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়। যেমন- গুগল, ফেসবুক।

সিপ্যানেল থেকে জনপ্রিয় স্ক্রিপ্ট ইনস্টলেশন

সিপ্যানেলে সফটাকুলার এপস ইনস্টলার নামে একটি ট্যাব রয়েছে। সিপ্যানেলের এই ট্যাবটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এর বিভিন্ন অপশন ব্যবহার করে বিভিন্ন জনপ্রিয় স্ক্রিপ্ট যেমন- জুমলা, ওয়ার্ডপ্রেস, পিইচপিবিবি, ড্রুপাল, ওপেনকার্ট ইত্যাদি সরাসরি আপনার সাইটে ইনস্টল করতে পারবেন। আমরা সাধারণত কোনো স্ক্রিপ্ট দিয়ে আমাদের ওয়েবসাইট করতে চাইলে স্ক্রিপ্টটি প্রথমে ডাউনলোড করি, তারপর সিপ্যানেলের পাবলিক এইচটিএমএল ফোল্ডারের ভেতরে আপলেড করে ইনস্টল করে থাকি। কিন্তু সিপ্যানেলের এই অপশনটি ব্যবহারের মাধ্যমে জনপ্রিয় স্ক্রিপ্টগুলো ডাউনলোড/আপলোড না করেই এখান থেকে ইনস্টল করতে পারবেন।

নতুন ফ্রিল্যান্স ওয়েব ডেভেলপাররা নিশ্চয়ই আমাদের এই তিন পর্বের টিউটরিয়াল থেকে সিপ্যানেল হোস্টিং ব্যবহারের প্রাথমিক ধারণা পেয়ে গেছেন।

প্রথমবারের মতো বন্দরনগরী চট্টগ্রামে হয়ে গেল বাংলা উইকিপিডিয়া অ সম্মেলন ২০১২।

বাংলা ভাষায় সবচেয়ে জনপ্রিয় বিশ্বকোষ বাংলা উইকিপিডিয়ায় (http://bn.wikipedia.org) বর্তমানে রয়েছে প্রায় ২৩ হাজার ভুক্তি। ২-৩ মার্চ চট্টগ্রামের ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশে (আইইউবি) অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে অংশ নিয়েছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তের এক ঝাঁক উইকিপ্রেমী।

পুরো আয়োজনের যা ছিল

২০০৪ সালে কয়েকজন বাঙ্গালি একসাথে শামিল হয় শুরু করেছিলেন বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিশ্বকোষ বাংলা উইকিপিডিয়া তৈরির কাজ। ২০০৬ সালে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) উদ্যোগে দেশে বাংলা উইকিপিডিয়াকে সমৃদ্ধ করার কাজে বিশেষ কার্যক্রম শুরু হয়। বিডিওএসএন ও উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের যৌথ আয়োজনে প্রথম বারের মতো আয়োজন করা হয় বাংলা উইকিপিডিয়ার অ সম্মেলনের। এতে আরেক সহযোগী ছিল চট্টগ্রামের আইইউবি। এছাড়া অ সম্মেলনের সহযোগিতায় ছিল ওয়ের্স্টান মেরিন শিপইয়ার্ড লিমিটেড, সিপিডিএল এবং ইটারনাল ডিজাইন অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট লিমিটেড।

অ সম্মেলনে ছিল নানা ধরনের আয়োজন। বিদ্যালয়, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য যেমন ছিল আলাদা ক্যুইজ প্রতিযোগিতা তেমনি সবার জন্য ছিল উইকিপিডিয়ার কর্মশালা, মুক্ত আলোচনা। বিষয়ভিত্তিক বিভিন্ন সেমিনারের পাশাপাশি দুই দিনের এ আয়োজনে ছিল মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বাংলা ছবি প্রদর্শনী। প্রথম দিনের অ সম্মেলনের উদ্ধোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র এম মনজুর আলম। এ সময়ে চট্টগ্রামসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা সহ আমাদের ইতিহাস ও জ্ঞানের সংরক্ষণের ক্ষেত্রে বাংলা উইকিপিডিয়া বিশেষ সাহায্য করতে পারে এবং সে দিকে সবার নজর দেয়ার আহবান জানান। এ সময়ে বাংলা উইকিপিডিয়ার বুরোক্র্যাট ও প্রশাসক রাগিব হাসানের লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান অ সম্মেলনের যুগ্ম আহবায়ক সৌমিত্র পালিত। এর পাশাপাশি অ সম্মেলন উপলক্ষে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক স্যু গার্ডেনের দেয়া ভিডিও বক্তব্য দেখানো হয়। এতে তিনি বাংলা উইকিপিডিয়ার এ আয়োজনের সফলতা কামনা করেন। প্রদর্শনীর শেষ দিনে সমাপনী অনুষ্ঠানে ক্যুইজ বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার ও সার্টিফিকেট তুলে দেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। এতে ছিল একাধিক সেমিনার, কর্মশালা, মুক্ত আলোচনা, গণ আড্ডা ইত্যাদি।

প্রথমদিনে অনুষ্ঠিত হয় ‘মোবাইল ও কমপিউটারে বাংলা লিখন’ বিষয়ক কর্মশালা যেখানে এসব ডিজিটাল মাধ্যমে কিভাবে বাংলায় লেখা যায় সে বিষয়টি হাতে কলমে শেখানো হয়। একই দিনে শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের জন্য অনুষ্ঠিত হয় ‘কিভাবে বাংলা উইকিপিডিয়াতে অবদান রাখা যায়’ সে বিষয়ক কর্মশালা। কর্মশালায় শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়। ‘বাংলা উইকিপিডিয়া সমৃদ্ধকরণ’ বিষয়ে অ সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনেও অনুষ্ঠিত হয়েছে আরেকটি কর্মশালা যেখানে শিক্ষার্থী ছাড়াও অংশ নিয়েছেন অনেক পেশাজীবীরাও। এছাড়া প্রথম দিনে অনুষ্ঠিত হয় ‘সার্বজনীন শিক্ষাবিস্তারে উইকিপিডিয়ার ভূমিকা’ শীর্ষক মুক্ত সেমিনার। এতে মূল বক্তা ছিলেন ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ ফেলো উইলিয়াম উলফ। দ্বিতীয় দিনে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘সামাজিক যোগাযোগ ও উইকিপিডিয়া’ এবং ‘উইকিপিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়া’ শীর্ষক সেমিনার।

অ সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ছিল গণ আড্ডা। উন্মুক্ত বিষয়ে অনুষ্ঠিত এ গণ আড্ডায় উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় লেখক অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও অধ্যাপক ইয়াসমিন হক। আড্ডায় নানা প্রশ্নের উত্তর দেন মুহম্মদ জাফর ইকবাল।

About blogger - ব্লগার

একটি উত্তর দিন