লিংকডইন (Linked In) : কর্পোরেটদের সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

লিংকডইন (Linked In) : কর্পোরেটদের সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

লিংকডইন (Linked In) : কর্পোরেটদেড় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

কর্পোরেটদেড় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক বা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো এখন তুমুল জনপ্রিয় ৷ ফেসবুকের !! সোশ্যাল নেটওয়ার্কের দুনিয়া লিড করছে এইটা তো এর বলার অপেক্ষা রাখে না ।  ফেসবুক সবার মানে তরুন, কিমবা বয়স্ক সবারই থাকছে ফেসবুক কিমবা টুইটার প্রফাইল । কিন্তু শুধুমাত্র কর্পোরেট বা পেশা জিবি দের জন্য কি আছে কোন সোশ্যাল নেটওয়ার্ক ? জি হ্যাঁ অবশ্যই আছে । আর সেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের নাম হল লিংকড–ইন ৷  এই সোশ্যাল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বর্তমান সময়ের কর্পোরেটরা উন্নয়ন করেন নিজের পেশাজীবনের ৷ এমনকি চাকরি পরিবর্তন বা নতুন চাকরি খুজতেও অনেক সওয়ক এই সোশ্যাল নেটওয়ার্ক ।   চলুন ঘুরে আসি আমার লিংকডইন (Linked In) প্রফাইল থেকে ।

শুধুমাত্র পেশাজীবীবা কর্পোরেট দের জন্যই তৈরি হয়েছে সামাজিক যোগাযোগের এই ওয়েবসাইট ৷ বাইরের দেসে যখন কোনো প্রতিষ্ঠানবা কম্পানির প্রধান কোনো পেশাজীবীর ইনফর্মেশন নিতে চান, তখন তিনি একবার লিংকড–ইনে ওই মানুষটার প্রোফাইলে একবার হলেও ঘুরে আসেন । বাংলাদেশেও এমনটা শুরু হয়ে গেছে।

মূলত লিংকডইন এ আপনি আপনার সম্পর্কিত যে তথ্য যুক্ত করবেন, সবগুলো মিলিয়ে ইচ্ছে করলেই কিন্তু জীবনবৃত্তান্ত তৈরি করা যায়। আপনার লিংকডইন-এ আপনার নেটওয়ার্কে যুক্ত থাকা অন্যরা আপনাকে আপনার কাজের ব্যাপারে নিজের মন্তব্য করতে পারবে, যা কর্পোরেট দের জন্য বেশ উপকারী।
শুধু যে নিজের স্কিল তুলে ধরবেন তা কিন্তু নয়, যাঁরা ডিজিটাল বিপণন সংক্রান্ত কাজে জুক্ত আছেন, তাঁরা নিজেদের বিজনেস নেটওয়ার্ক বাড়াতে এবং তাদের প্রডাক্ট দ্রুত অনলাইন বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে লিংকডইন এর ব্যবহারের কোন তুলনা নাই ।  লিংকডইনের স্রষ্টা রেড হোফম্যান ২০০৩ সালে লিংকডইন চালু করেন  । বর্তমানে লিংকডইনে ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২৭ কোটির বেশি।

সর্ববৃহৎ এই প্রফেসনাল নেটওয়ার্কে কর্পোরেট হিসেবে নিজেকে তুলে ধরার বিষয়টি আপনাকেই এগিয়ে রাখবে অন্যদের চেয়ে। আর এটা নিজের পেশা কিংবা অন্য সফলতাগুলোকে অন্যদের মাঝে তুলে ধরার ক্ষেত্রে বড় সহায়ক—বললেন এখনি ডট কমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আহসান। তিনি বলেন, এখন অনেক ক্ষেত্রে লিংকড–ইন থেকে সরাসরি নিয়োগও হচ্ছে। বিশেষ করে প্রতিষ্ঠানের বড় পদে লোক নেওয়ার ক্ষেত্রে লিংকড–ইনের সহায়তা নেওয়া হয়।

লিংকডইন (Linked In) : কর্পোরেটদেড় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

কর্পোরেটদেড় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুক কিংবা মাইক্রো ব্লগিং ওয়েবসাইট টুইটারের চেয়ে সম্পূর্ণ আলাদা লিংকড ইন। কর্পোরেটদের জন্য ডেভেলপ করা এই সাইটে ইচ্ছে করলেই নিজের সব তথ্য আপনি দিতে পারবেন । শিক্ষাগত যোগ্যতা, নিজের কাজের খবর, বর্তমানে যেখানে কর্মরত এই রকম শব তথ্যই সহজেই শেয়ার করতে পারবেন আমনি । এক সাথে কারও সবগুলো পেশাগত বিষয় জানতে লিংকডইনের কোন তুলনা নেই। এসব ছারাও রয়েছে বিভিন্ন নেটওয়ার্কে যুক্ত হবার সুভিদা । সম্পূর্ণ বিনা খরচে এ প্রফেসনাল দের এই বৃহৎ নেটওয়ার্কে চাইলেই যে কেউ যোগ দিতে পারবে । তবে নিজেকে তুলে ধরার ক্ষেত্রে নজর রাখতে হবে, কীভাবে আপনি সাজাবেন আপনার প্রোফাইল। নিজের প্রোফাইল গোছানোর ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য, অন্যান্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের লিংক, যোগাযোগের তথ্য, হালনাগাদ তথ্য যোগ করা, নিজের অভিজ্ঞতার তথ্য ইত্যাদি সঠিকভাবে অ্যাড করা গুরুত্বপূর্ণ ।
আসলে, প্রোফাইল তৈরির ক্ষেত্রে প্রফেশনাল ছবি, ই-মেইল, অভিজ্ঞতার পূর্ণ বর্ণনা, গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো যোগ করাটা জরুরি । জীবনবৃত্তান্তে আপনার লিংকডইন প্রোফাইলের ঠিকানাটা দিয়ে দিলে আরও ভালো হয়। নিজের প্রফেসনাল প্রোফাইল থেকে কমিউনিটি তৈরির সুভিদা রয়েছে লিংকডইনে । এ ছাড়া প্রডাক্ট বা সার্ভিসের জন্য ব্র্যান্ড তৈরিরও সুবিধা পাওয়া যায় এতে । নিজের ব্র্যান্ডের জন্য গ্রুপ তৈরি ও সংযুক্তদের সঙ্গে এটি সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া যায়। ব্যবসার ক্ষেত্রে যেমন প্রয়োজনীয় এবং নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব, তেমনি দক্ষ প্রফেসনাল দের খুঁজে পেতেও লিংকডইন বেশ কাজের । ম্যাগনিটো ডিজিটালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রিয়াদ হুসাইন বলেন, ফেসবুক আসলে সবার জন্য সামাজিক যোগাযোগের সাইট। অন্যদিকে শুধু পেশাজীবীদের জন্য লিংকড–ইন। আর বর্তমানে ভালো ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে লিংকড–ইনে নিজের একটি প্রোফাইল থাকার  বিকল্প অন্য কিছু নেই। যেহেতু এ নেটওয়ার্কে যুক্ত সবাই পেশাজীবী, তাই নিজেকে তুলে ধরার ক্ষেত্রে এটি বর্তমানে অতিপ্রয়োজনীয় একটি সামাজিক যোগাযোগ সাইট।
ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ারকে এগিয়ে নিতে আজই তৈরি করে ফেলুন নিজের পেশাজীবী প্রোফাইল। লিংকড–ইন (www.linkedin.com) আপনাকে দেবে নতুন এক পেশাজীবী নেটওয়ার্কের সন্ধান, যা আপনাকে সামনে এগিয়ে নিতে সহায়তা করবে।

About ইমতিয়াজ বিন আহমেদ

ইমতিয়াজ বিন আহমেদ

One comment

একটি উত্তর দিন