যশোরের নোয়াপাড়ায় ডিজিটাল স্কুলের যাত্রা

যশোরের নোয়াপাড়ায় ডিজিটাল স্কুলের যাত্রা

Bornomala“শিক্ষাব্যবস্থা কাগজনির্ভর ছিলো কাগজের সভ্যতায়। আমরা এখন ডিজিটাল সভ্যতায় তাই শিক্ষাব্যবস্থা এখন ডিজিটাল হচ্ছে। একসময়ে বই, খাতা, কলম, চক, ডাস্টার দিয়ে শিক্ষার ব্যবস্থা হতো। এখন ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে ডিজিটাল যন্ত্র থাকে। আমরা পিছিয়ে পড়া জাতি বলে ডিজিটাল শিক্ষায় পিছিয়ে থাকতে পারিনা।” যশোরের নোয়াপাড়ার প্রফেসর পাড়ার মোড়ে বর্ণমালা ই-স্কুল উদ্বোধন কালে দেশে ডিজিটাল শিক্ষাব্যবস্থা প্রচলনের অগ্রনায়ক ও বিজয় বাংলা কীবোর্ডের জনক মোস্তাফা জব্বার একথা বলেন।
গত ২১ নভেম্বর সকাল ১০টায়যশোরের নোয়াপাড়ার প্রফেসর রোডে বর্ণমালা ই-স্কুলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, “৯৯ সালে শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তরের যে উদ্যোগ আমি নিয়েছিলাম সেটির এখন ব্যাপক বিস্তার ঘটছে। আমরা তখন কম্পিউটার শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেছিলাম। সরকার ২০১১ সাল থেকে আামদের সেই উদ্যোগকে হাই স্কুল ও কলেজে বাস্তবায়ন করছে। আমরা তখন ক্লাশরুমে কম্পিউটার নিয়েছিলাম। একদিন দেশের সকল ক্লাশরুমে ডিজিটাল যন্ত্র যাবে।”
এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ২০১৬ সাল থেকে বিজয় শিশু শিক্ষা ও বিজয় প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবহার করে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করবে। উক্ত অনুষ্ঠানে বিজয় ডিজিটাল এর প্রধান নির্বাহী জেসমিন জুঁই বিজয় শিশু শিক্ষা ও বিজয় প্রাথমিক শিক্ষা সফটওয়্যার  প্রদর্শন করেন। এসব সফটওয়্যার দিয়ে শিশু শ্রেণি থেকে দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত বই ছাড়াও শিক্ষা প্রদান করা যায়। জেসমিন জুই এসব সফটওয়্যারের প্রণেতা।
এর আগের সন্ধ্যায় মোস্তাফা জব্বার ও জেসমিন জুঁই স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদেরকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে শিক্ষাদান বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন