মাইক্রোসফটের প্রতিবেদন: ম্যালওয়্যার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ তিন নম্বরে

মাইক্রোসফটের প্রতিবেদন: ম্যালওয়্যার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ তিন নম্বরে

malware৭ জুন ‘ম্যালওয়্যার সংক্রমণ সূচক ২০১৬’ প্রকাশ করেছে মাইক্রোসফট এশিয়া। এই সূচকে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ম্যালওয়্যার এবং এর আক্রমণের মাত্রা অনুযায়ী দেশগুলোর ক্রমতালিকা প্রকাশ করা হয়। ম্যালওয়্যার সংক্রমণ সূচকে বাংলাদেশের জন্য আতঙ্কের অনেক কিছুই আছে, কারণ এই তালিকায় ৩ নম্বরে বাংলাদেশের নাম। ম্যালওয়্যার হলো ক্ষতিকর একধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম, যা কম্পিউটারে অনুপ্রবেশ করে স্বাভাবিক কাজ বিঘ্নিত করে এবং নানা রকম ক্ষতি করে থাকে।
মাইক্রোসফটের তালিতায় সবচেয়ে বিপজ্জনক তিনটি ম্যালওয়্যার হলো গ্যামারু, স্কিয়াহ ও পিলস। গ্যামারু সাধারণত সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। স্কিয়াহ ও পিলস ম্যালওয়্যার অনভিজ্ঞ কম্পিউটার ব্যবহারকারী খুঁজে বের করে।
ম্যালওয়্যারগুলো আপনার ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করতে কিংবা আরও ম্যালওয়্যার কম্পিউটারে ছড়িয়ে দিতে পারে। ভয়ের আরেকটি কারণ হলো, কম্পিউটারে হ্যাকারকে ঢোকার সুযোগ করে দেয় কোনো কোনো ম্যালওয়্যার। মাইক্রোসফট প্রোটেকশন সেন্টার এবং মাইক্রোসফট সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স রিপোর্টে এসব তথ্য পাওয়া যায়।
এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের উদীয়মান বাজারগুলো নিরাপত্তাঝুঁকির মুখে পড়ে বেশি। ঝুঁকিপ্রবণ প্রথম পাঁচটি দেশের চারটি হলো পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ ও নেপাল। এই দেশগুলোর প্রতিটিতেই ৪০ শতাংশের কাছাকাছি কম্পিউটার ম্যালওয়্যারে আক্রান্ত। তবে সারা বিশ্বে গড়ে সংখ্যাটা ২০.৮।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন