বাধ্যতামূলক মোবাইলে ১০ সেকেন্ড পালস্

বাধ্যতামূলক মোবাইলে ১০ সেকেন্ড পালস্

বাংলাদেশের বর্তমানে সব নেটওয়ার্ক কোম্পানীর মুঠোফোনের কলে সব ধরনের প্যাকেজে ১০ সেকেন্ড পালস্ হারে টাকা কাটতে মোবাইল ফোন অপারেটরকে নির্দেশনা দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। আগামী ১৫ আগস্টের মধ্যে এই আদেশ বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়ে রবি, বাংলালিংক, এয়ারটেল, গ্রামীণফোন ও সিটিসেলের প্রধান নির্বাহীকে এবং টেলিটকের ব্যাস্থাপনা পরিচালককে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল জিয়া আহমেদ এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, প্যাকেজ নির্বিশেষে ১০ সেকেন্ড পালস্ দেয়ার বিষয়টি কমিশনে পাস করার পর বৃহস্পতিবার তা চূড়ান্ত করে অপারেটরদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ‘বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই কল কেটে যাওয়ার সমস্যা রয়েছে। এতে গ্রাহকরা অনেক সময় কয়েক সেকেন্ড কথা বললেও পুরো মিনিটের টাকা দিচ্ছে। এসব দিক বিবেচনা করেই গ্রাহকদের সুবিধার্থে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’ বিটিআরসি’র সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিস বিভাগের পরিচালক বৃহস্পতিবার অপারেটরদের কাছে এ সংক্রান্ত একটি নোটিশ পাঠিয়েছেন।

তিনি তার চিঠিতে লিখেছেন, ‘মোবাইলফোনের গ্রাহকরা কল করার পর নেটওয়ার্কের ত্র“টি বা অন্য কোন কারণে কল ড্রপ হয় এবং পুনঃসংযোগে প্রতিবারই এক মিনিট বা পূর্ণ পালসের অর্থ পরিশোধ করতে হয় অর্থাৎ অনেক সময় গ্রাহকদের একটি কলের জন্য একাধিক সংযোগ পেতে চেষ্টা করতে হয় এবং প্রতিবারই নির্ধারিত এক মিনিটের কিংবা পূর্ণ পালসের চার্জ প্রদান করতে হচ্ছে। ফলে গ্রাহকরা আর্থিকভাবে তিগ্রস্ত হচ্ছেন।

এছাড়া অনেকে সংপ্তি কথোপকথনে অভ্যস্ত। এক্ষেত্রে অতিরিক্ত সময়ের চার্জ প্রদান বাস্তব সম্মত নয়।’ নির্দেশনা আগামী ১৫ আগস্ট থেকে কার্যকর করতেও নোটিশে অপারেটরদের বলা হয়েছে। দেশে বর্তমানে পাঁচটি জিএসএম ও একটি সিডিএমএ অপারেটর সেবা দিচ্ছে।

বিটিআরসির হিসাব অনুযায়ী বর্তমানে প্রায় ৯ কোটির বেশি লোক মোবাইল ফোন ব্যবহার করছেন। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে এদের অধিকাংশকেই কলড্রপ ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

About বিদ্যুৎ বিশ্বাস

একটি উত্তর দিন