“বাংলালায়ন ওয়াইম্যাক্স” এখন পৌঁছে গেছে রাজবাড়ীতে

“বাংলালায়ন ওয়াইম্যাক্স” এখন পৌঁছে গেছে রাজবাড়ীতে

বাংলালায়ন কমিউনিকেশন্স লিঃ (বিসিএল) দেশব্যাপী ওয়াইম্যাক্স প্রযুক্তি সম্প্রসারণের অংশ হিসেবে দেশের সকল বিভাগীয় শহরের পরে জেলা পর্যায়ে অতি দ্রুততম সময়ে নেটওয়ার্কের আওতায় আনার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের ঐতিহ্যবাহি জনপদ রাজবাড়ীর গ্রাহকদের দ্বারপ্রান্তে উন্নত ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে “বাংলালায়ন ওয়াইম্যাক্স” রাজবাড়ীতে তার গ্রাহকসেবা কার্যক্রম আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু করেছে। এ উপলক্ষে আজ ৮ অক্টোবর, ২০১৩ (মঙ্গলবার) বেলা ১২.৩০ মিনিটে স্থানীয় একটি রেস্তোরায় এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বাংলালায়ন কমিউনিকেশন্স লিঃ এর চীফ কোঅর্ডিনেশন অফিসার, আজহার এইচ চৌধুরী ও চীফ মার্কেটিং অফিসার, জি. এম. ফারুক খান বক্তব্য প্রদান করেন।

ansjdjdhw

সংবাদ সম্মেলনে বাংলালায়ন কমিউনিকেশন্স লিঃ এর চীফ কোঅর্ডিনেশন অফিসার, আজহার এইচ চৌধুরী বলেন, “বাংলালায়ন” শহরাঞ্চলের পাশাপাশি দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতেও গ্রাহকদের জন্য ওয়াইম্যাক্স সেবা প্রদানের লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে ঐতিহ্যবাহি রাজবাড়ী শহরে “বাংলালায়ন ওয়াইম্যাক্স” এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করতে পেরে আমরা আনন্দিত এবং গর্বিত। আপনারা সকলেই অবগত আছেন যে, ওয়াইম্যাক্স হচ্ছে একটি আধুনিক প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে বর্তমানে দ্রুতগতির, অবিচ্ছিন্ন এবং সিকিউরড ইন্টারনেট সেবা গ্রহণ করা যায়। আপাতত রাজবাড়ী শহরাঞ্চলে আমাদের নেটওয়ার্ক কাভারেজ রয়েছে। আমরা অচিরেই এ অঞ্চলে ব্যাপকভাবে নেটওয়ার্ক বিস্তারের কার্যক্রম শুরু করব। “বাংলালায়ন ওয়াইম্যাক্স” তার গ্রাহকদের উন্নত ও দ্রুততম ইন্টারনেট সেবা প্রদানে সর্বদাই সচেষ্ট।

চীফ মার্কেটিং অফিসার, জি. এম. ফারুক খান বলেন, কৃুষি নির্ভর জনপদ রাজবাড়ীতে আধুনিক চতুর্থ প্রজন্মের (ফোর জি) প্রযুক্তি ওয়াইম্যাক্স এর গ্রাহক সেবার বাণিজ্যিক উদ্বোধন করতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। “বাংলালায়ন” এর লক্ষ্য হচ্ছে গ্রাহকদেরকে সহজলভ্য ও দ্রুতগতীর ইন্টারনেট সেবা প্রদান করা। আমি গর্ব করে বলতে পারি আমরা আমাদের লক্ষ্যের দিকে সঠিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছি। আর এই লক্ষ্য পূরণের অংশ হিসেবে আজ আমরা রাজবাড়ীতে আমাদের সেবা কার্যক্রম আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু করেছি। আমি বিশ্বাস করি এই উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের সাহায্যে এ অঞ্চলের অধিবাসীগণ দেশের কৃষি, শিক্ষা, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প, সংস্কৃতি এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে আরো বেশি অবদান রাখতে পারবে। আপনারা ইতিমধ্যে নিশ্চয় অবগত হয়েছেন যে, দ্রুত নেটওয়ার্ক বিস্তার ও গ্রাহক সংখ্যার বিচারে বিশের তৃতীয় ওয়াইম্যাক্স অপারেটর “বাংলালায়ন”। এটি শুধু “বাংলালায়ন” এর একার নয় সারা বাংলাদেশের জন্য গর্বের বিষয়। এ অর্জন সম্ভব হয়েছে আপনাদের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ সহযোগীতায়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, বাংলালায়ন কমিউনিকেশন্স লিঃ এর জেনারেল ম্যানেজার, সেলস, ফয়সল বিন রাফেক, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার, ডিলার এ্যান্ড ডিষ্ট্রিবিউশন, মোঃ রিফাত হোসাইন, সিনিয়র ম্যানেজার, কর্পোরেট সেলস, খন্দকার হাফিজুর রহমান, মিডিয়া এ্যান্ড পিআর ম্যানেজার, সৈয়দ নাসিম, রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার, জহির উদ্দিন খান প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে একটি রোড শো রাজবাড়ী শহর প্রদক্ষিণ করে।

About বদরুদ্দোজা মাহমুদ তুহিন

একটি উত্তর দিন