বাংলাদেশে পালিত হল আর্থ আওয়ার কর্মসূচি!! রসিকতা নাকি বাস্তবতা!!

বাংলাদেশে পালিত হল আর্থ আওয়ার কর্মসূচি!! রসিকতা নাকি বাস্তবতা!!

গতকাল শনিবার বাংলাদেশে পালিত হল আর্থ আওয়ার কর্মসূচি। শনিবার রাত সাড়ে আটটা থেকে এক ঘণ্টার জন্য বৈদ্যুতিক বাতি বন্ধ রাখার বৈশ্বিক কর্মসূচি ‘আর্থ আওয়ার কর্মসূচিপালন করা হয়। বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতেই এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ তো বাই ডিফল্ট প্রতি ১ ঘন্টা পর পর এই কর্মসূচি প্রতিদিন পালন করছে। এই রাত সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত যদি ভাগ্যক্রমে আপনার বাসায় বিদ্যুৎ থাকে তখন তা বন্ধ করে কর্মসূচিপালন করতে হবে? কি সেলুকাস!!!


বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যুৎ ভবনে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানিবিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী শনিবার রাত সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত প্রয়োজনীয় নয় এমন সব ধরনের বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, “আশা করছি জনগণ স্বতস্ফূর্তভাবে এ কর্মসূচি পালন করবে। জরুরি প্রয়োজনে কেউ কেউ বাতি বা শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র চালু রাখতেই পারেন, তবে জনগণের প্রতি আমার আহ্বান, আপনারা ওই এক ঘণ্টা বিদ্যুৎ ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।”
‘আর্থ আওয়ার’ কর্মসূচির আওতায় প্রতি বছর মার্চ মাসের শেষ শনিবার রাত সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে বাসাবাড়ি ও অফিসে প্রয়োজনীয় নয় এমন বৈদ্যুতিক বাতি বন্ধের জন্য বিশ্ববাসীকে উৎসাহিত করা হয়। জ্বালানি সাশ্রয়ের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় বিশ্ববাসীকে সচেতন করাই এর লক্ষ্য।
এ কর্মসূচির আয়োজক ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর ন্যাচার (ডব্লিউডব্লিউএফ)।
বাংলাদেশেও এ কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানিয়ে তৗফিক-ই-ইলাহী বলেন, “জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বিরূপ প্রভাব হ্রাসের দায়িত্ব আমাদের নয়; তবে আমরা পশ্চিমাদের বলে দিতে চাই, আর অপব্যয় নয়।”
বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) চেয়ারম্যান এএসএম আলমগীর বলেন, “এক ঘণ্টা বিদ্যুৎ ব্যবহার থেকে বিরত থাকলে ৪০০ টন জ্বালানি সাশ্রয় করা সম্ভব হবে। আর বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে ১৬ লাখ ইউনিট।”
বিদ্যুৎসচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, “আমরা প্রচার শুরু করেছি। আশা করছি সারা দেশেই এই কর্মসূচি পালিত হবে।”
২০০৭ সালে অস্ট্রেলিয়ায় সিডনিতে প্রথমবারের মতো ‘আর্থ আওয়ার’ পালিত হয়। ২০১১ সালে ১৩৫ দেশের ৫ হাজার ২৫১টি শহরে তা ছড়িয়ে পড়ে। আইফেল টাওয়ার, বাকিংহাম প্যালেস, গোল্ডেন গেইট ব্রিজ, টেবল মাউন্টেইন, ক্রাইস্ট দ্য রিডিমার ও সিডনি ওপেরা হাউজের মতো বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার বাতি এক ঘণ্টার জন্য নিভিয়ে রাখা হয়।

About blogger - ব্লগার

একটি উত্তর দিন