বাংলাদেশের ‘রূপকথা’ এখন রিপলিস কার্টুনে

বাংলাদেশের ‘রূপকথা’ এখন রিপলিস কার্টুনে

বিস্ময়কর বিভিন্ন ঘটনা সংরক্ষণ ও প্রকাশের জন্য বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠান রিপলিস বিলিভ ইট অর নটের কার্টুনে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশের ছয় বছর বয়সী রূপকথা—যার পুরো নাম ওয়াসিক ফারহান।
যুক্তরাষ্ট্রের কার্টুনিস্ট রবার্ট রিপলির নামে চালু হওয়া রিপলিস বিলিভ ইট অর নট! সারা বিশ্বের বিভিন্ন আশ্চর্যজনক ঘটনার স্বীকৃতি দিয়ে থাকে। এসব নিয়ে করা হয় সংবাদপত্রের প্যানেল সিরিজ, রেডিও এবং টেলিভিশন আয়োজন। এ ছাড়া এর অন্যান্য কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে চেইন মিউজিয়াম, কমিক বই ইত্যাদি। ২৫ নভেম্বর রিপলিস কার্টুন সিরিজে প্রকাশিত হয়েছে ঢাকার ওয়াসিক ফারহানের কার্টুন (www.ripleys.com/weird/videos-and-oddities/ripleys-syndicated-cartoons/cartoon-11-25-2012)।
মাত্র ছয় বছর বয়সে কম্পিউটার প্রোগ্রাম লেখার কৃতিত্ব হিসেবে এ তালিকায় যুক্ত হয়েছে রূপকথার নাম। ‘ওয়ান্ডার বয়’ শিরোনামে প্রকাশিত কার্টুনটিতে দেখানো হয়েছে ল্যাপটপে কাজ করছে রূপকথা, আর লেখা রয়েছে ‘বাংলাদেশের ওয়াসিক ফারহান রূপকথা। মাত্র ছয় বছর বয়সে যে কম্পিউটার সফটওয়্যার প্রোগ্রাম করতে পারে!’। রূপকথা গতকাল মঙ্গলবার প্রথম আলোকে জানায়, ‘ভালো লাগছে আমার ছবি দেখে। আরও ভালো করতে চাই।’ রূপকথার এই তথ্য রিপলিসে জমা দিয়েছেন তার মা সিনথিয়া ফারহিন।
রিপলিসের পরবর্তী বইতেও যুক্ত হচ্ছে রূপকথার কার্টুনটি। এ বিষয়ে রিপলিস পাবলিশিংয়ের জ্যেষ্ঠ গবেষক জেমস প্রাউড এক চিঠিতে জানিয়েছেন, ‘ইতিমধ্যে আমরা রূপকথার কার্টুনটি প্রকাশ করেছি। এর পাশাপাশি আমাদের পরবর্তী প্রকাশিত বইয়েও বিষয়টি যুক্ত করব।’ সিনথিয়া ফারহিন প্রথম আলোকে বলেন, ‘অনেক ভালো লাগছে। এমন ভালো কিছু একটার অপেক্ষায় ছিলাম অনেক দিন ধরেই। এটা একটা বড় অর্জন বলে আমি মনে করি।’
মাত্র তিন বছর বয়স থেকে অভিজ্ঞ ব্যবহারকারীর মতো কম্পিউটারে বেশ দক্ষতা অর্জন করে রূপকথা। কম্পিউটার শেখে আরও আগে। রূপকথার বাসা ঢাকার নিকেতন এলাকায়। তার বাবা ওয়াসিম ফারহান একজন ব্যবসায়ী।

খবরঃ প্রথম আলো

About blogger - ব্লগার

একটি উত্তর দিন