ফ্রিকোয়েন্সি পুনর্বিন্যাসের মাধ্যমে মাত্র দুই দিনেই সরকারের সাশ্রয় ২ হাজার কোটি টাকা

ফ্রিকোয়েন্সি পুনর্বিন্যাসের মাধ্যমে মাত্র দুই দিনেই সরকারের সাশ্রয় ২ হাজার কোটি টাকা

মাত্র দুই দিনেই সরকারের সাশ্রয় হয়েছে ২ হাজার কোটি টাকা। ফ্রিকোয়েন্সি পুনর্বিন্যাসের মাধ্যমে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ১৫.৫ মেগাহার্টজ ফ্রিকোয়েন্সি সাশ্রয় করে। আর এই মেগাহার্টজের বাজারমূল্য কমপক্ষে ২ হাজার কোটি টাকা।

দীর্ঘদিন ধরেই সরকার ও মোবাইল অপারেটরদের পক্ষ থেকে ফ্রিকোয়েন্সি পুনর্বিন্যাসের কাজটি সম্পন্ন করার তাগিদ ছিল। অবশেষে সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে কাজটি সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। টেলিযোগাযোগ বিশেষজ্ঞ ও সংশ্লিষ্টরা এই কাজটিকে টেলিযোগাযোগের ক্ষেত্রে মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। গত বৃহস্পতিবার বিটিআরসি ১৮০০ মেগাহার্টজে ব্যান্ডে ফ্রিকোয়েন্সি পুনর্বিন্যাস কাজে হাত দেয়। এরপর বিটিআরসি মাত্র দুই দিনে দেশের সব মোবাইল অপারেটরের ফ্রিকোয়েন্সি পুনর্বিন্যাস কাজ সম্পন্ন করে। এ বিষয়ে বিটিআরসির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) জিয়া আহমেদ জানান, এটি নিঃসন্দেহে একটি সফল উদ্যোগ। এর মাধ্যমে সরকারের বিশাল অংকের টাকা সাশ্রয় হয়েছে। বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, এই সাশ্রয় হওয়া মেগাহার্টজ পরবর্তী সময়ে অন্য কোনো মোবাইল ফোন অপারেটরকে বরাদ্দ দেওয়া হবে। আগামী সেপ্টেম্বরে বিটিআরসি থ্রি-জি মোবাইল ফোনের নিলাম করবে। নিলামে ৫টি মোবাইল অপারেটরকে থ্রি-জি লাইসেন্স দেওয়া হবে।

About blogger - ব্লগার

একটি উত্তর দিন