‘প্লাস্টিক খাবার’ দিয়ে আসল খাবারের ব্যবসা

‘প্লাস্টিক খাবার’ দিয়ে আসল খাবারের ব্যবসা

ধরুন, আপনি কোনো দেশে ঘুরতে গেছেন যেখানকার ভাষা আপনার জানা নেই৷ এই অবস্থায় রেস্তোরাঁয় গিয়ে খাবারের অর্ডার দিতে আপনি হয়ত সমস্যায় পড়তে পারেন৷ কারণ, কোন খাবার কেমন, কী দিয়ে তৈরি, ভাষার কারণে নাও বুঝতে পারেন৷

কিন্তু যদি খাবারগুলো দেখতে কেমন এবং পরিমাণে কতটা হতে পারে তার একটা অনুমান জানা যায়, তাহলে সুবিধা হবে বৈকি! এই উদ্দেশ্যেই প্রায় একশো বছর ধরে জাপানের রেস্তোরাঁগুলোতে একটা বিষয়ের প্রচলন চলে আসছে৷ সেটা হলো, প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি আসল খাবারের মডেল বা রেপ্লিকা৷ জাপানের অনেক রেস্টুরেন্টে গেলেই দেখা যাবে এই ধরনের রেপ্লিকা, সঙ্গে মূল্যের ট্যাগ৷ ফলে পর্যটকরা কোন খাবারটি খাবেন সে ব্যাপারে খুব সহজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন৷

অর্থনীতি বিষয়ক একটি দৈনিকের সম্পাদক ইয়াসুনবু নোজ এসব খাবার মডেলের উপর একটি বই লিখেছেন৷ তাতে তিনি জানিয়েছেন, অভিনব এই আইডিয়াটা জাপানে খাদ্য বিপ্লব এনে দিয়েছে৷ প্রথমদিকে জাপানের গ্রাম এলাকার মানুষদের সুবিধার জন্য শহুরে রেস্টুরেন্টগুলোতে এই চল শুরু হয়েছিল৷ আর এখনতো পর্যটকদের জন্যও বেশ সুবিধা হয়েছে৷

Plastic food

জাপান ছাড়াও প্রতিবেশী চীন ও দক্ষিণ কোরিয়াতেও এ ধরনের খাবার মডেলের প্রচলন সীমিত পরিসরে চালু হয়েছে৷

ইটালি থেকে জাপানে হানিমুনে ঘুরতে যাওয়া এক দম্পতি জাপানের এই সংস্কৃতির প্রশংসা করেছেন৷ তাঁরা বলছেন, এর ফলে ঘুরতে এসে খাবার নিয়ে তাদের ততটা ঝামেলায় পড়তে হচ্ছে না৷

তবে সবার কাছে যে বিষয়টা সুবিধার তা নয়৷ যেমন ইসরায়েল থেকে যাওয়া পর্যটক এলডা রোজেনবার্গ বলছেন, ‘‘আমি যখন এসব মডেল দেখি তখন মনে হয়ে যেন আমি সেটা খেতে চাই না৷ এটা খুবই অদ্ভুত৷”- ডয়চে ভেলে

About কমজগৎ ডেস্ক

একটি উত্তর দিন