“নতুন মিডিয়া, ব্লগিং ও সামাজিক মাধ্যমঃ স্বাধীনতা এবং দায়িত্ব” শিরোনামে সেমিনার অনুষ্ঠিত

“নতুন মিডিয়া, ব্লগিং ও সামাজিক মাধ্যমঃ স্বাধীনতা এবং দায়িত্ব” শিরোনামে সেমিনার অনুষ্ঠিত


গতকাল (এপ্রিল ৯, ২০১১) ড্যাফোডিল আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা এবং গণযোগাযোগ বিভাগ তাদের সোবহানবাগ ক্যাম্পাসে অবস্থিত ডিআইইউ অডিটোরিয়ামে একটি সেমিনারের আয়োজন করে। “নতুন মিডিয়া, ব্লগিং ও সামাজিক মাধ্যমঃ স্বাধীনতা এবং দায়িত্ব” শিরোনামের এই সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ড্যাফোডিল আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক এবং সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. গোলাম রাহমান। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন ফাহমিদুল হক, সহযোগী অধ্যাপক, গণ যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্যারিস্টার তানজিব-উল আলম অ্যাডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট, শওকত হোসেন মাসুম, বার্তা সম্পাদক, দৈনিক প্রথম আলো, বাংলাদেশের প্রখ্যাত আইসিটি সাংবাদিক এবং ব্লগার রাজিব আহমেদ প্রমুখ।

ফাহমিদুল হক বলেন যে ফেসবুক, টুইটারের মত সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো এখন অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং এদের জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ব্লগিং এর মাধ্যমে মানুষ এখন তাদের মত সরাসরি প্রকাশ করতে পারে। কিন্তু যারা ব্লগিং এবং বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করেন তাদেরকে ব্যক্তিগত আক্রমণ এবং কুৎসা রটনা থেকে বিরত থেকে গঠনমূলক সমালোচনা এবং সুস্থভাবে মতের আদানপ্রদান করা উচিত ।

প্রথম আলোর বার্তা সম্পাদক শওকত হোসেন মাসুম বলেন, সামাজিক মাধ্যমগুলো বাংলাদেশে জনমত গঠনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বর্তমানে বাংলাদেশের অনেক মানুষ সংবাদ জানার জন্য পত্রপত্রিকার পাশাপাশি ব্লগ এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন ফেসবুকের উপর নির্ভর করছে। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে লেখক তৈরিতে ব্লগ গুলোর ভূমিকা অপরিসীম এবং যারা সাংবাদিক পেশায় আসতে চান তাদের নিয়মিত ব্লগে লেখা উচিত।

আইসিটি সাংবাদিক এবং ব্লগার রাজিব আহমেদ বলেন, যে পশ্চিমা দেশগুলোতে এখন ইন্টারনেট, প্রিন্ট মিডিয়ার চাইতে বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। বাংলাদেশে এখন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের কাছে ফেসবুক টুইটার, ব্লগ এগুলো আর কোন নতুন মিডিয়া নয় বরং প্রধান মিডিয়া হয়ে উঠেছে। নতুন মিডিয়ার সম্ভাবনার কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন যে প্রফেশনাল ব্লগিং এবং আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে এখন বাংলাদেশে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং বৈদেশিক মুদ্রা আয় সম্ভব এবং এ ব্যাপারে তিনি নীতি-নির্ধারক এবং সংশ্লিষ্ট মহলের মনোযোগ কামনা করেন।

ব্যারিস্টার তানজিব-উল আলম বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের সামাজিক এবং রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে নতুন মিডিয়ার ভূমিকা এবং গুরুত্ব অপরিসীম কিন্তু যারা এই নতুন মিডিয়াকে ব্যবহার করছেন তারা যেন তাদের কাজের মাধ্যমে অন্যের বাকস্বাধীনতা বা ব্যক্তি স্বাধীনতায় আঘাত না করেন।

ড্যাফোডিল আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক এবং সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. গোলাম রাহমান সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, নতুন মিডিয়া, ব্লগিং এবং সামাজিক মাধ্যমের গুরুত্ব বর্তমান যুগে আর অস্বীকার করার উপায় নেই। ব্লগিং এবং সামাজিক মাধ্যমে এখন সম্পর্ক নির্মাণ ছাড়াও  সামাজিক এবং রাজনৈতিক ক্ষেত্রে পরিবর্তন সাধনের অনুঘটক হিসেবে কাজ করছে। তিনি ব্লগিং এবং সামাজিক মাধ্যম ব্যবহকারীদের আরও সচেতন হবার আহ্বান জানান।

About mehdi

একটি উত্তর দিন