দেশ জুড়ে কাঁপানো তীব্র শীত: আমরা চাইলেই দুর্দশা লাঘব করতে পারি

হাড় কাঁপানো শীতের তীব্রতায় দেশে গরীব দুঃখী মানুষ সীমাহীন কষ্টে আছে।

কুড়িগ্রাম, রংপুর,লালমনির হাট,বাউফল,গাইবান্ধা,শেরপুর, নওগাঁ,যশোর,রাজশাহী, নীলফামারী,মানিকগঞ্জ,ঠাকুরগাঁও,মুন্সীগঞ্জ,শ্রীমঙ্গল, সৈয়দপুর, দিনাজপুর, পাবনা, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, সাতক্ষীরা, সীতাকুণ্ড, কুমিল্লা, চাঁদপুর সহ সারা দেশে শীতে তীব্রতা বেড়েছে।

সর্দি, কাশি, জ্বর, হাঁপানি রোগীদের উপসর্গ বৃদ্ধি এবং নিউমোনিয়ায় শিশু সহ মৃতের সংখ্যা শতাধিকেরও বেশি বলে প্রচারিত সংবাদে জানা গেছে।

আবহাওয়া অফিস বলছে , ভারতের উপর সৃষ্ট একটি উচ্চচাপ বলয় বাংলাদেশের পূর্বাঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত হওয়া এবং ঊর্ধ্বাকাশের হিমশীতল জেট উইন্ড বাংলাদেশের উপর ১৮ হাজার ফুট উচ্চতায় নেমে আসায় শৈত্যপ্রবাহ এতোটা বেড়েছে। উচ্চচাপ বলয়ের বিস্তৃতি ও হিমশীতল জেট উইন্ড ভূ-ভাগের কাছাকাছি নেমে আসার উপর শীতের তীব্রতা নির্ভর করে।

আমরা কি এদের জন্য কিছুই করতে পারিনা?

দেশের সকল বিত্তবান, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা, এনজিও, বিবেকবান নাগরিকের কাছে উদাত্ত আহবান অসহায় মানুষের পাশে এসে দাঁড়ান।

আপনার অপ্রয়োজনীয় শীত বস্ত্র, কম্বল, লেপ বা কাঁথা যাই থাকুক দান করুন।

সকল রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, আমলা এবং অন্যান্য, সামর্থ্যবান সকল প্রবাসী বাংলাদেশি ভাই-বোন আপনারাও এগিয়ে আসুন।

আসুন সবাই মানবিক কারণে হলেও “যার যা সামর্থ্য আছে” তাই নিয়ে অন্তত: একজন প্রতিবেশী/অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াই।

তথ্য ও ছবি: ইন্টারনেট

About saifbhuyan

একটি উত্তর দিন