দেশব্যাপী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইন্টারনেট ব্যবহার ছড়িয়ে দিতে চালু হলো গুগল বাস বাংলাদেশ

দেশব্যাপী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইন্টারনেট ব্যবহার ছড়িয়ে দিতে চালু হলো গুগল বাস বাংলাদেশ

বাংলাদেশে শিক্ষামূলক উদ্যোগ হিসেবে গুগল আজ ‘গুগল বাস’ প্রকল্প চালু করার ঘোষণা দিয়েছে। ‘গুগল বাস বাংলাদেশ প্রজেক্ট’ শীর্ষক এই প্রকল্প দেশজুড়ে পরিচালিত হবে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের পাঁচ লাখ শিক্ষার্থীকে ইন্টারনেটের ব্যবহার শেখানোর লক্ষ্যে গুগল প্রকল্পটি হাতে নিয়েছে।

গুগল বাসটি এক বছর ধরে বাংলাদেশের ৩৫টি লোকেশনে গিয়ে ৫০০টি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে অধ্যয়নরত আন্ডারগ্র্যাজুয়েট তথা ডিগ্রি ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের জন্য ইন্টারনেটবিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করবে। ইন্টারনেট ব্যবহারের দক্ষতা অর্জন করে শিক্ষার্থীরা যাতে নিজ নিজ প্রচেষ্টায় ব্যবসায় ও কোনো প্রকল্প তৈরি ও পরিচালনার কলাকৌশল জানতে পারেন সেজন্য গুগল এই উদ্যোগ নিয়েছে।

গুগল বাসটিতে সিট বা আসনগুলো এমনভাবে সন্নিবেশ করা হয়েছে যে প্রতিটির সামনেই থ্রিজি ইন্টারনেট সংযোগ সম্বলিত মনিটর বা পর্দা ও সাউন্ড সিস্টেম বসানো রয়েছে। এই মনিটর বা পর্দা ও সাউন্ড সিস্টেমে অডিও-ভিডিওর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

বাংলাদেশে বর্তমানে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই সবচেয়ে বেশি ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। তুলনামূলকভাবে তাঁদের অধিকতর অংশগ্রহণের সুবাদেই এদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারের প্রবণতা ও হার বেড়ে চলেছে। প্রাথমিকভাবে তাঁরা একাডেমিক বা লেখাপড়ার প্রয়োজনে ও সামাজিক যোগাযোগের জন্য ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন।

‘গুগল বাস বাংলাদেশের’ মাধ্যমে ইন্টারনেটের ওপর প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করা হবে। এরফলে অংশগ্রহণকারীরা স্বজন, বন্ধু-বান্ধব,  পরিচিত ও সমজাতীয়দের সঙ্গে অনলাইনে যোগাযোগ স্থাপনের পাশাপাশি ইন্টারনেটের উপযোগিতা, শক্তি ও সুফল সম্পর্কে জানতে পারবেন। একই সঙ্গে তাঁরা গুগলের বিভিন্ন পণ্য ও সেবা ব্যবহারের কলাকৌশল জানার সুযোগ পাবেন। সব মিলিয়ে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে তাঁদের জ্ঞানের পরিধি নতুন মাত্রা পাবে।

গুগলের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের এমার্জিং মার্কেটসের কান্ট্রি ম্যানেজার জেমস ম্যাকক্লুর এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘বাংলাদেশ হলো এমন এক দেশ যেখানে সম্ভাবনাময় বিশাল তারুণ্যের শক্তি রয়েছে; যাঁরা দেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির দিকে নিয়ে যেতে পারেন। আমরা মনে করি, উপযুক্ত প্রশিক্ষণ পেলে সমাজের এই উৎসাহী-উদ্যমী ও প্রাণচঞ্চল তরুণ শক্তিই একদিন ইন্টারনেটের অমিত সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলবে এবং এদেশকে প্রযুক্তিভিত্তিক গ্লোবাল ভিলেজ বা বৈশ্বিক গ্রামে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করবে।’’

‘গুগল বাস বাংলাদেশ প্রজেক্ট’ নামের প্রকল্পটি চালু হয়ে গেছে। এটি ইতিমধ্যে রাজধানী ঢাকায় কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে পৌঁছেছে এবং এতে কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই

গুগল বাস চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট, রাজশাহী, রংপুর, বরিশাল-এই ছয়টি বিভাগীয় শহর ও গুরুত্বপূর্ণ শহরসমূহের নির্বাচিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে পৌঁছে যাবে।

শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট ব্যবহারের কলাকৌশল ও উপযোগিতা শেখাতে গুগল বাসের কর্মশালায় একজন প্রশিক্ষক থাকবেন। সেই সঙ্গে তাঁদের গুগলের বিভিন্ন পণ্য ও সেবা সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হবে। গুগলের এসব পণ্য-সেবার মধ্যে রয়েছেÑ গুগল সার্চ, ক্রোম, ডকস্, ম্যাপস, ইউটিউব, গুগল প্লাস ইত্যাদি। এ ছাড়া শিক্ষার্থীরা যা শিখেছেন তা নিয়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায় এমন ধরনের অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস বা মোবাইল ফোনে প্র্যাকটিস বা চর্চা করার সুযোগ পাবেন।

ইন্টারনেটবিষয়ক এই প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণে আগ্রহী শিক্ষার্থীরা গুগল। এর মাধ্যমে গুগল বাস বাংলাদেশ কমিউনিটি(Google Bus Bangladesh Community) পেইজ থেকে এই উদ্যোগের সর্বশেষ অবস্থান ও অগ্রগতির হালনাগাদ তথ্য জানতে পারবেন। সেই সঙ্গে তাঁরা যা জেনেছেন বা শিখেছেন তা নিয়ে একে অন্যের সঙ্গে আলোচনা করে উপকৃত হবেন বলে গুগল আশা করছে।

About অঞ্জন দেব

একটি উত্তর দিন