ঢাবিতে চতুর্থ জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব শুরু ৩১ মে

ঢাবিতে চতুর্থ জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব শুরু ৩১ মে

duitsউচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞান ছড়িয়ে দিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামী ৩১ মে শুরু হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব। দুই দিনের এই আয়োজনে সারাদেশের ৭০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১৭ শতাধিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও প্রযুক্তিপ্রেমী অংশ নেবেন। উৎসবের আয়োজক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস)।
বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্বিবদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে “৪র্থ জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব” উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা এসব তথ্য জানান।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ডিইউআইটিএস সাধারণ সম্পাদক মাফরুহুর রহমান ফারুকী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির অবাধ প্রবাহে যুক্ত হয়ে ক্রমেই উজ্জ্বল সম্ভাবনার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আর এই এগিয়ে যাওয়ায় সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছে তরুণ প্রজন্ম। এই অগ্রযাত্রাকে আরো দৃঢ় করতে এবং জ্ঞানভিত্তিক গণতান্ত্রিক সমাজ বিনির্মাণে তথ্য-প্রযুক্তি নর্ভির ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণের বিকল্প নেই।
আয়োজকরা জানান, ডিইউআইটিএসের বছরব্যাপি নানা কার্যক্রমের মধ্যে সবচেয়ে বড় আয়োজন জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব। এই উৎসবের মধ্য দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদেরে মাঝে আইসিটি ভাবনা যেমন আদান-প্রদান হয় তেমনি তারা অনুপ্রণিত হয় নতুন নতুন আবিস্কারে। উৎসবটি সারাদেশের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং প্রযুক্তি প্রেমীদের মিলন মেলায় পরিণত হয়।
আগামী ৩১ মে ও ১ জুন যথাক্রমে রবি ও সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দু’দিনব্যাপী “৪র্থ জাতীয় ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসব”। অংশগ্রহণকারীর দিক দিয়ে দেশের সবচেয়ে বড় এই ক্যাম্পাস প্রযুক্তি উৎসবটি এবার ডিইউআইটিএসের সঙ্গে যৌথভাবে করতে যাচ্ছে সরকারের আইসিটি বিভাগ।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, উৎসবের প্রতিপাদ্য নির্ধারিত হয়েছে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে ও উন্নত শিক্ষায় চাই তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর ক্যাম্পাস‘। এ উৎসবে অংশ নেবেন দেশের শীর্ষস্থানীয় ৭০টি বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুল-কলেজের প্রায় ১৭০০ শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও প্রযুক্তিপ্রেমী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি মিলনায়তনে আগামী ৩১ মে রবিবার সকাল ১১ টায় এই মহা আয়োজনের উদ্বোধন করবেন ঢাবি উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। ১ জুন বিকেল ৩ টায় সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করবেন আইসিটি বিভিাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, টিএসসি চত্ত্বরে আয়োজিত উৎসবের মূল পর্বে থাকছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রকল্প প্রদর্শন, অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট, গেমিং ও কুইজ প্রতিযোগিতা, ইন্টারনেট নিরাপত্তা বিষয়ক কর্মশালা, আউটসোর্সিং ও উদ্যোক্তা সম্মেলন, তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর বিতর্ক ও বিজনেস আইডিয়া প্রতিযোগিতাসহ নানা আয়োজন। উৎসবে মোট ২টি সেমিনার, ১টি কর্মশালা ও একটি আলোচনা পর্ব থাকছে। এ আয়োজনের মাধ্যমে প্রযুক্তি নির্ভর ক্যাম্পাস গড়তে প্রস্তাবনাও রাখবেন তরুণরা।
সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বশ্বিবদ্যিালয়রে তথ্যপ্রযুক্তি ইন্সটটিউিটরে পরচিালক ও ডইিউআইটএিসরে উপদষ্টো ড. কাজী মুহাইমনি আস সাকবি, এডসিন গ্রুপরে মার্কেটিং ম্যনজোর জাহদিুল ইসলাম, ডইিউআইটএিসরে প্রতষ্ঠিাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরান, ডইিউআইটএিসরে প্রতষ্ঠিাতা সাধারণ সম্পাদক আরফি দওেয়ান, ডইিউআইটএিসরে সাধারণ সম্পাদক মাফরুহুর রহমান ফারুকী, সনিয়ির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কে এম ইমরান, সাংগঠনকি সম্পাদক আরফি ইবনে আলী এবং প্রচার সম্পাদক মুখলিসুর রহমান মাহিন।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন