ঢাকায় দুই দিনব্যাপী টেক সামিট শুরু ২০ মার্চ

ঢাকায় দুই দিনব্যাপী টেক সামিট শুরু ২০ মার্চ

CTO-1ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ইনফোকম ও সিটিও ফোরাম  বাংলাদেশের আয়োজনে ঢাকার হোটেল সোনারগাঁওয়ে ২০-২১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে টেক সামিট ২০১৫।
ইনফোকম এবং সিটিও ফোরাম বিগত দুই বছর ধরে বাংলাদেশ ও ভারতের তথ্যপ্রযুক্তিবিদদের নিয়ে বিভিন্ন সামিট করে আসছে। এই লক্ষ্যে ‘ড্রাইভিং আইসিটি ইনোভেশন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি’ থিমের ওপর ভিত্তি করে এই সামিটে ভারত, বাংলাদেশ ছাড়াও শ্রীলঙ্কা,  নেপাল এবং ভুটানের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের প্রধানরা যোগ দেবেন।
আজ বুধবার (৪ মার্চ) রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডি ক্লাবের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে টেক সামিট আয়োজনের ঘোষণা দিয়ে বিস্তারিত জানান সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট তপন কান্তি সরকার ও ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা গ্রুপের (এপিবি) আইটি বিভাগের অ্যাসোসিয়েট ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ইনফোকমের সাংগঠনিক সম্পাদক কালি কৃষ্ণ মহাপাত্র। সংবাদ সম্মেলনে আনন্দবাজার পত্রিকা গ্রুপের (এপিবি) আইটি ইনফ্রাস্ট্রাকচার বিভাগের কর্পোরেট ম্যানেজার আব্দুর রাফি, সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদুল বারী, কোষাধ্যক্ষ ড. ইজাজুল হক উপস্থিত ছিলেন।
সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট তপন কান্তি সরকার বলেন, সিটিও ফোরাম দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে সভা, সেমিনার, সম্মেলনসহ নানা বিষয়ে কাজ করছে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ২০-২১ মার্চ ঢাকায় টেক সামিট ২০১৫ অনুষ্ঠিত হবে। সামিটে বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারত, নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কা থেকে ১০০ জনের বেশি প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ, সিআইও, সিটিও, সিআইএসও, সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, গুরুত্বপূর্ণ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের আইটি প্রধান, আইটি কনসালট্যান্ট ও ব্যবহারকারী অংশ নেবেন। সম্মেলনে প্রযুক্তিপণ্য, সেবা, সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, ব্যবহারকারী প্রতিষ্ঠান ও আইটি কোম্পানিগুলোর মধ্যে অভিজ্ঞতা বিনিময়ের সুযোগ সৃষ্টি হবে। সামিটে প্রযুক্তির নানা বিষয়ে ৮টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে।
এছাড়া এই সামিটের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো চালু হচ্ছে ‘ইনফোকম-সিটিও ফোরাম আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৫’। সার্ক অঞ্চলের প্রযুক্তি খাতে করপোরেট প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের স্ব-স্ব খাতে বিশেষ অবদানের জন্য এই সম্মাননা প্রদান করা হবে। সামিটে ভারতের ৭ জন, বাংলাদেশের ৫ জন এবং নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কার ১ জন করে মোট ১৫ জন আইটি প্রফেশনালকে অ্যাওয়ার্ড দেয়া হবে। ভবিষ্যতে সার্কের সদস্য সব দেশকে যুক্ত করে ‘ইনফোকম-সিটিও ফোরাম সার্ক আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়াড’ প্রদান করা হবে। টেক সামিটের বিস্তারিত তথ্য নিয়ে একটি ওয়েবসাইট শিগগির চালু করা হবে। এছাড়া সিটিও ফোরামের ওয়েবে সামিটের তথ্য পাওয়া যাবে।
ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা গ্রুপের (এপিবি) আইটি বিভাগের অ্যাসোসিয়েট ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ইনফোকমের সাংগঠনিক সম্পাদক কালি কৃষ্ণ মহাপাত্র বলেন, এবারের টেক সামিটে সার্কের ৫টি দেশের আইটি প্রফেশনালসগণ একত্রিত হয়ে আইটি সক্ষমতা প্রদর্শন করবেন। আমরা সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের সাথে যৌথভাবে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক বেশ কিছু সফল প্রোগ্রাম করেছি। আশা করি অতীতের চেয়ে আরো সফল হবে এবারের টেক সামিট। অদূর ভবিষ্যতে সার্ক অঞ্চলের সব দেশকে যুক্ত করে বড় পরিসরে সামিট হবে। সামিটে আন্ত:দেশীয় প্রযুক্তি সেবা বিনিময় ও যোগাযোগের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, টেক সামিটে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি, তথ্যপ্রযুক্তির নানা সম্ভাবনা-সমস্যা, ট্রেন্ড নিয়ে আলোচনা ও সেমিনার হবে। সামিটে দেশ-বিদেশের খ্যাতনামা প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ, সিআইও, সিটিও, সিআইএসও, সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, প্রযুক্তি ব্যবহারকারীরা অংশ নেবেন। সামিটে প্রযুক্তির নানা বিষয়ে আলোচনা, সমস্যা সমাধান, নীতিনির্ধারণসহ আন্ত:যোগাযোগের সুযোগ সৃষ্টি হবে।
উল্লেখ্য, ইনফোকম ভারতে তথ্যপ্রযুক্তিবিদদের নিয়ে কাজ করে। আর সিটিও ফোরাম হচ্ছে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের সর্বোচ্চ সংগঠন।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন