ঢাকায় খুদে বিজ্ঞানীদের উৎসব

ঢাকায় খুদে বিজ্ঞানীদের উৎসব

আগামী ২৯ ও ৩০ আগষ্ট শুক্র ও শনিবার অনুষ্ঠিত হবে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ২০১৪। বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি (এসপিএসবি) ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের (বিএফএফ) আয়োজনে এবং বাংলাদেশ বিজ্ঞান যাদুঘরের সহযোগিতায় দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকার আগারগাঁওয়ে অবস্থিত জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে অনুষ্ঠিত হবে এই উৎসব। দেশের বিজ্ঞান শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের প্রতি অনুরাগী ও বিজ্ঞানের মূল রীতিনীতির ওপর দক্ষ করে তোলার লক্ষ্যে গতবছর থেকে শুরু হয় শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস। শিশু-কিশোরদের বিজ্ঞানের প্রতি অনুরাগী ও বিজ্ঞানের মূল রীতিনীতির ওপর আগ্রহী করে তুলতে আয়োজন করা হয়েছে শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস। আগামী ২৯ আগস্ট কংগ্রেসের উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এ এম জাকারিয়া এবং জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি যাদুঘরের পরিচালক মো. হুমায়ুন কবির খান। এছাড়া ৩০ আগস্ট সমাপনী পর্বে উপস্থিত থাকবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, কিশোর আলো’র সম্পাদক আনিসুল হক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এ এম জাকারিয়াসহ অনেকে।

 

কংগ্রেসের বিস্তারিত তুলে ধরতে আজ ২৬ আগষ্ট মঙ্গলবার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজন করা হয়। এতে কংগ্রেসের নানা বিষয় তুলে ধরেন কংগ্রেসের আহ্বায়ক ও এসপিএসবি’র সাধারণ সম্পাদক ড. ফারসীম মান্নান মোহাম্মদী। তিনি বলেন, ‘বিজ্ঞান শিক্ষার্থীদের জন্য দরকার বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির ওপর আগ্রহী করে তোলা। শিশু কিশোরদের বিজ্ঞানের প্রতি অনুরাগী ও বিজ্ঞানের মূল রীতিনীতির ওপর আগ্রহী করে তুলতে দ্বিতীয়বারের মতো আয়োজন করা হয়েছে শিশু কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস।’
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের হেড অব মার্কেটিং আজম খান, এসপিএসবি’র সহ-সভাপতি মুনির হাসান, বিএফএফের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরীসহ অনেকে। বক্তারা জানান, গত বছর থেকে শুরু হয়েছে শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ও বিজ্ঞান ক্যাম্প। শিশু কিশোরদের বিজ্ঞান কংগ্রেস সম্পর্কে আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সারা দেশের খুদে বিজ্ঞানীদের নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে উৎসবের। এই উৎসব কোন প্রতিযোগীতা নয়, দুই দিনের আয়োজন নিয়েই একটি উৎসব। দেশে বর্তমানে বিজ্ঞান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ক্রমাগত কমে যাচ্ছে। এজন্য দরকার বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির ওপর শিক্ষার্থীদের আগ্রহী করে তোলা। আর সে লক্ষ্যেই এমন আয়োজন।

IMG_1997
এই আয়োজনের প্রাথমিক পর্বের আয়োজন বিষয়ে এসপিএসবি’র সহ-সভাপতি মুনির হাসান জানান, গত মে থেকে জুলাই পর্যন্ত সারা দেশে অনুষ্ঠিত হয় বিভিন্ন কার্যক্রম। এবারের আয়োজনে সারা দেশে মোট ১ হাজারটি স্কুলে প্রচারণা চালানো হয়। পরবর্তীতে ১০৪টি স্কুলের প্রায় ১২ হাজার শিক্ষার্থীদের মধ্যে চালানো হয় এক্টিভেশন কার্যক্রম। এছাড়া ৯০টি স্কুলের প্রায় দশ হাজার  শিক্ষার্থীদের মধ্যে পরিচালনা করা হয় বিশেষ কর্মশালা। ৮টি শহরে তিনদিন ব্যাপি কুদরাত-ই-খুদা সামার সায়েন্স ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে যেখানে ৫০০ শিক্ষার্থী হাতে কলমে বিজ্ঞানের প্রকল্প ও পোস্টার তৈরি করা শিখেছে। এছাড়া ১০০ জন বিজ্ঞান শিক্ষকদের নিয়ে আয়োজন করা হয় সত্যেন বসু বিজ্ঞান।

ক্যাম্প ও ক্রিস এনার্জি বিজ্ঞান শিক্ষক ক্যাম্প। সারাদেশে কর্মশালা ও অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য বিজ্ঞানকর্মীদের নিয়ে একটি তিনদিন ব্যাপী ও একটি দিনব্যাপি কর্মী ক্যাম্পও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, তিন ক্যাটাগরির এই কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হবে। এগুলো হলো প্রাইমারি (তৃতীয় থেকে পঞ্চম শ্রেণী), জুনিয়র (ষষ্ঠ হতে অষ্টম শ্রেণী), সিনিয়র (নবম থেকে দ্বাদশ)। চারটি গ্র“পে তিনটি বিষয় প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিযোগিতার বিষয় তিনটি (ক) পোস্টার প্রদর্শন, (খ) প্রকল্প প্রদর্শন, (গ) বিজ্ঞান নিবন্ধ উপস্থাপন। অনুষ্ঠানে বিজ্ঞান বিষয়ক নানা প্রকল্প ও পোষ্টার প্রদর্শনী, নিবন্ধ উপস্থাপনের পাশাপাশি নেটওয়ার্কিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। এছাড়াও তিন ক্যাটাগরির শিক্ষার্থীর জন্য ৩টি বিশেষ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে মুল আয়োজনে।
কংগ্রেস উপলক্ষ্যে বিশেষ বাছাই পর্বে ৩টি ক্যাটাগরিতে ৩টি বিষয়ে ব্যাক্তিগত ও দলীয়ভাবে প্রায় ১০০০ জন শিক্ষার্থী নিবন্ধন করে। নিবন্ধনকৃতদের মধ্য থেকে বিজ্ঞান প্রকল্প ১৬৩টি, বিজ্ঞান পেপার ১১১টি ও পোস্টার ৭৬টি নির্বাচন করা হয় চূড়ান্ত পর্বের জন্য। এছাড়া হবে বিজ্ঞান কুইজ প্রতিযোগিতা। কংগ্রেস থেকে সেরা ৬০ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে ঢাকায় দ্বিতীয় জগদীশ বসু বিজ্ঞান ক্যাম্প ঢাকার আশুলিয়ায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভাসিটির ক্যাম্পাসে আয়োজন করা  হবে। এছাড়া দুইদিনের এ আয়োজনে থাকবে প্রকল্প ও পোষ্টার প্রদর্শনী, নিবন্ধ উপস্থাপনের পাশাপাশি নেটওয়ার্কিং কার্যক্রম, যৌথ কংগ্রেস, রোবট ও ড্রোন প্রদর্শন, বিজ্ঞান বইয়ের মেলাসহ থাকবে নানা আয়োজন।  দ্বিতীয় দিন পুরস্কার বিতরনীর মাধ্যমে শেষ হবে এবারের কংগ্রেস।
কংগ্রেসের মূল পৃষ্টপোষকতায় রয়েছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক। সহযোগী হিসেবে রয়েছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস), ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, রকমারি ডট কম, কিশোর আলো ও জিরো টু ইনফিনিটি। বিস্তারিত তথ্য জানা যাবে:  www.cscongress.org

 

About অঞ্জন দেব

একটি উত্তর দিন