ঢাকার কেরানীগঞ্জে প্রথম ‘পেপারলেস ইউএনও অফিস’

ঢাকার কেরানীগঞ্জে প্রথম ‘পেপারলেস ইউএনও অফিস’

unoঢাকা জেলার ৭৭ টি উপজেলা, সব ইউনিয়ন ও পৌর ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে জনগণ খতিয়ান বা পর্চা প্রাপ্তির জন্য মাত্র ১২০ টাকা পরিশোধ করে আবেদন করতে পারবেন। রবিবার একথা জানান ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার হেলালুদ্দীন আহমদ। তিনি বলেন, এতে করে সেবা প্রার্থীদের সময় ও অর্থের সাশ্রয় হবে এবং জনগণের হয়রানি হ্রাস পাবে।
স্বল্প ব্যয়ে ও স্বল্প সময়ে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার (ইউডিসি) এর মাধ্যমে জমির খতিয়ান প্রাপ্তির আবেদন কার্যক্রমের এবং কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদে অবস্থিত ‘পেপারলেস কেরানীগঞ্জ ইউএনও অফিস, নলেজ ডেস্ক, এবং ওয়ান-স্টপ সার্ভিস সেন্টার’ এর উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।
এসময় বিভাগীয় কমিশনার অন-লাইনে আবেদনকৃত ৪ জন সেবা গ্রহীতার হাতে তাদের জমির খতিয়ান তুলে দেন।
অনুষ্ঠানে ঢাকা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন বলেন, দেশের ৪৯০টি উপজেলার মধ্যে কেরানীগঞ্জ উপজেলায় প্রথম ‘পেপারলেস ইউএনও অফিস’ ও ওয়ান-স্টপ সার্ভিস সেন্টার এবং নলেজ ডেস্ক স্থাপন করা হয়েছে। ঢাকা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ও উপজেলা পরিষদের সহযোগিতায় এই কার্যক্রমের মাধ্যমে ২৪ ঘণ্টা সপ্তাহে ৭ দিন বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে যে কোন আবেদনকারী ওয়েব-পোর্টাল ও অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে সেবা প্রাপ্তির জন্য আবেদন বা অভিযোগ করতে পারবেন। আবেদনকারী অনলাইন বা অ্যাপসের মাধ্যমে আবেদনের পর তার মোবাইল ফোনে একটি প্রাপ্তি স্বীকার ও ট্র্যাকিং নম্বর পাবেন।এটি বাস্তবায়নের ফলে জনগণকে কষ্ট করে এখন বার বার ইউএনও অফিসে সেবা প্রাপ্তির জন্য যেতে হবে না। ঘরে বসেই জনগণ সেবা পাবেন। উপজেলা নলেজ ডেস্কে স্থাপিত ওয়ান-স্টপ সার্ভিস সেন্টারে জনগণ সকল তথ্য বিনামূল্যে পাবেন এবং টাচ স্ক্রিন কম্পিউটারের মাধ্যমে মাত্র ৫ টাকার বিনিময়ে যে কোন ডকুমেন্টস, ফরম এবং মৌজার নকশা প্রিন্ট করতে পারবেন। এছাড়া নলেজ ডেস্কে স্থাপিত এলইডি টিভির মাধ্যমে সকল দফতরের তথ্য প্রদানের উদ্যোগের জন্য উপজেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানান তিনি। জনগণের হয়রানি লাঘবে এ ধরনের স্থানীয় উদ্যোগকে প্রাতিষ্ঠানিক ভিত্তি দেয়ার জন্য তিনি স্থানীয় প্রশাসন জনপ্রতিনিধিদেরও অনুরোধ জানান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা প্রশাসক  মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন, কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ, ঢাকার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. আল-মামুন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান, কেরানীগঞ্জ উপজেলার সকল কর্মকর্তা, ১২ টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যগণ এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
এরপর বিভাগীয় কমিশনার প্রায় ৪ শতাধিক শিক্ষার্থীর হাতে এ হাইজিন কিটস তুলে দেন। প্রতিটি হাইজিন কিটসে শিক্ষার্থীদের জন্য টুথপেস্ট, ব্রাশ, সাবান, স্পঞ্জের স্যান্ডাল, নেইল কাটার, খাতা-কলম, ও স্কুল ব্যাগ দেয়া হয়।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন