ঝুলন্ত তারে ঝুলছে আইএসপির ব্যবসা

ঝুলন্ত তারে ঝুলছে আইএসপির ব্যবসা

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (আইএসপি) প্রতিষ্ঠানগুলোর গ্রাহক সংযোগের ঝুলন্ত তার কেটে দেওয়া হচ্ছে। কয়েক বছর ধরে বিদ্যুতের খুঁটি থেকে এসব তার সড়ানোর প্রক্রিয়া চলছে। এতদিন নানা কারণে খুঁটি থেকে মাটির নিচ দিয়ে সংযোগ দেওয়ার কথা থাকলেও হয়নি। তবে এবার কঠোর অবস্থানে রয়েছে সরকার।

রাজধানীতে বিদ্যুৎ সরবরাহের দায়িত্বে থাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি) এবং ঢাকা ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো) এবার তার সড়িয়ে দেওয়ার আয়োজন চূড়ান্ত করেছে।

রোববারের মধ্যে আইএসপিদের নোটিশ দিয়ে ঝুলন্ত তার অপসারণ করতে বলেছে কোম্পানি দুটি। এরমধ্যে নির্দেশ কার্যকর না হলে বিদ্যুতের খুঁটিতে থাকা তার নামিয়ে ফেলা হবে। বর্তমানে রাজধানীতে কার্যক্রম পরিচালনাকারী প্রায় ৬০টি আইএসপি প্রতিষ্ঠানের গ্রাহক সংযোগের প্রায় পুরোটাই বিুদ্যতের খুঁটি নির্ভর।

এতে গ্রাহকদের ইন্টারনেটের সংযোগ থেকে বিছিন্ন হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। কেননা ইন্টারনেট সংযোগ প্রদানকারী কোম্পানিগুলোকে একাধিকবার সময় দেওয়া হলেও তারা বিকল্প ব্যবস্থা চালু করেনি।

আর এতে ব্যাংক, বীমা ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানসহ প্রায় ৫০ লাখ গ্রাহক ইন্টারনেট সংযোগ হারাবেন। ইতিমধ্যে গুলশান ২ সার্কেল, বনানী ও বারিধার প্রায় তিন হাজার সংযোগ কেটে দেওয়া হয়েছে।

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশনের (আইএসপিএবি) সহ-সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির টেকশহর ডটকমকে জানান, যেখানে যে পর্যন্ত আন্ডারগ্রাউন্ড এনটিটিএন ট্রান্সমিশন লাইন রয়েছে সেখানে মাটির নিচ দিয়ে (আন্ডারগ্রাউন্ড) সংযোগের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু ভূর্গভস্ত সংযোগ দেওয়ার দায়িত্বপ্রাপ্ত এনটিটিএনের লোকাল ডিস্ট্রিবিউশন পয়েন্ট (এলডিপি) বা সর্বশেষ পপ থেকে সংযোগটি গ্রাহকের বাসায় বা অফিসে দেওয়ার বিকল্প ব্যবস্থা নেই? এখানে তার ঝুলিয়ে নেওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

আলমাস কবির জানান, কোনো বিকল্প ব্যবস্থা না করে এভাবে তার কেটে দেয়া অন্যায়। এনটিটিএনের ট্রান্সমিশন লাইন যদি গ্রাহকের দুয়ার পর্যন্ত যায় তাহলে আইএসপি কোম্পানিগুলোও তার এনটিটিএনর আন্ডারগ্রাউন্ড দিয়ে নিয়ে যাবে। যদি তা না যায় তাহলে ডিপিডিসি ও ডেসকোর খুঁটি ভাড়ায় হলেও ব্যবহার করতে দিতে হবে। যদি তাও দেয়া না হয় তাহলে নিজস্ব খুটি স্থাপনের অনুমতি দেয়া হোক।

বিষয়টিতে কোন জটিলতার কিছু নেই উল্লেখ করে এ ব্যবসায়ী বলেন, প্রতিটি ভবনের সামনে এনটিটিএনের লোকাল ডিস্ট্রিবিউশন পয়েন্ট (এলডিপি) না থাকলে সর্বশেষ গ্রাহক সংযোগ ঝুলন্ত তার থাকবেই।

এ বিষয়ে আইএসপিএবির সভাপতি আখতারুজ্জামান মঞ্জু বলেন, গত ৩০ অক্টোবর বিদুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপুর সঙ্গে বিটিআরসি, আইএসপিএবি এবং কোয়াব অপারেটরদের নিয়ে সভায় বিদুৎতের খুঁটি থেকে ঝুলন্ত ক্যাবল নামিয়ে ফেলার কথা জানানো হয়। আইএসপিএবির পক্ষ থেকে কারিগরি সমস্যাসহ এনটিটিএনের সর্বশেষ ডিস্ট্রিবিউশন পয়েন্ট ও সেখান থেকে গ্রাহক পর্যন্ত সংযোগ প্রদানের বিষয়টি বলার পরও কাজ হযনি। তিনি বলেন, সভায় প্রতিমন্ত্রী কোনো যুক্তি শুনতে রাজি হননি।

About অঞ্জন দেব

একটি উত্তর দিন