জাপানের আইটি প্রফেশনাল এক্সামিনেশন কাউন্সিলের সদস্য হচ্ছে বাংলাদেশ

জাপানের আইটি প্রফেশনাল এক্সামিনেশন কাউন্সিলের সদস্য হচ্ছে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ আইটি ইঞ্জিনিয়ার্স এক্সামিনেশন (ITEE) পরিচালনার জন্য জাপানের আইটি প্রফেশনাল এক্সামিনেশন কাউন্সিল (ITPEC) এর সদস্য হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। রোববার আঁগারগাওয়ে আইসিটি বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে  বাংলাদেশের এই সদস্য পদ লাভের বিষয়টি জানানো হয়।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী, আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, আইসিটি বিভাগের সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম খান, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক এস এম আশরাফুল ইসলাম সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ‘আইটি ইঞ্জিনিয়ার্স এক্সামিনেশন’ জাপান প্রবর্তিত পরীক্ষা পদ্ধতি যার মাধ্যমে আইসিটি জনবলের জ্ঞান ও দক্ষতা পরিমাপ করা হয়ে থাকে। এ পরীক্ষা পদ্ধতি প্রবর্তন ও পরিচালনার জন্য জাপানের ITPEC এর সদস্যপদ প্রয়োজন হয়।

আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের এ সদস্যপদ লাভের জন্য বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল অডিটরিয়ামে আাগামী ১ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। যেখানে জাপানসহ ITPEC-এর সদস্য দেশগুলোর ১৪ জন উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবেন।

আরো জানানো হয়, ITEE পরীক্ষা পরিচালনার জন্য বিসিসিতে ইতোমধ্যে বাংলাদেশ আইটি ইঞ্জিনিয়ার্স এক্সামিনেশন সেন্টার (BDITEC) নামে একটি প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো তৈরি করা হয়েছে। BDITEC গত বছরের এপ্রিলে দুটি পরীক্ষা সফলতার সাথে সম্পন্ন করেছে। তৃতীয় পরীক্ষাটি আগামী ২৬ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং চট্টগ্রাম ও খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে। এ পরীক্ষাগুলো জাপানের কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপনায় সব সদস্য দেশে একসাথে একই প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হয়।

বক্তারা বলেন, এর ফলে আইটি পেশাজীবী বা গ্র্যাজুয়েটদের অভিন্ন একটি মানদন্ডে সার্টিফিকেশন প্রাপ্তির সুযোগ ঘটে। এ সার্টিফিকেশনের আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতাও রয়েছে।

বর্তামনে জাপান, ভারত, চীন, মালয়েশিয়া, তাইওয়ান, সিঙ্গাপুর, কোরিয়া, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, মিয়ানমার, ভিয়েতনাম ও মঙ্গোলিয়ায় এ সার্টিফিকেশন স্বীকৃত যার পরিধি ক্রমশ বাড়ছে।

ITEE সার্টিফিকেশন বাংলাদেশের শিক্ষার্থী ও পেশাজীবীদের জন্য দেশে-বিদেশে আকর্ষনীয় কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করবে।ফলে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত কম্পিউটার বিজ্ঞান ও অন্যান্য আইসিটি বিষয়ের শিক্ষার্থী, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আইসিটি পেশাজীবী এবং আইসিটি জ্ঞান ও দক্ষতাসম্পন্ন ব্যক্তিরা জাপানসহ বিভিন্ন দেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ পাবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন মন্ত্রী এবং প্রতিমন্ত্রী।

About কমজগৎ ডেস্ক

একটি উত্তর দিন