জাতীয় ই-সার্ভিস নীতিমালা চূড়ান্তকরণ বিষয়ে কর্মশালা

জাতীয় ই-সার্ভিস নীতিমালা চূড়ান্তকরণ বিষয়ে কর্মশালা

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের সফল প্রয়োগ, নাগরিক সেবাসমূহকে সহজলভ্য করা, যে কোন স্থান থেকে, যে কোন সময় নাগরিক সেবাসমূহ প্রাপ্তি নিশ্চিত করা, নাগরিক সেবাসমূহের গুণগত মান নিশ্চিত করা, নাগরিক হয়রানি হ্রাস ও ডিজিটাল স্বাক্ষরের ব্যবহার উৎসাহিত করতে ই-সার্ভিস রুলের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য। এ লক্ষ্যে সরকার জাতীয় ই-সার্ভিস নীতিমালা প্রনয়ন করতে যাচ্ছে। নীতিমালায় কি কি বিষয় থাকতে পারে সে বিষয়ে আলোচনার জন্য বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বিসিসি (বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল) ভবনে জাতীয় ই-সার্ভিস নীতিমালা-২০১৩ চূড়ান্তকরণ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি(আইসিটি) মন্ত্রণালয় আয়োজিত এ কর্মশালায় প্রধান আলোচক ছিলেন আইসিটি সচিব নজরুল ইসলাম খান। সভাপতিত্ব করেন আইসিটি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কামাল উদ্দিন আহমেদ। কর্মশালায় বক্তৃতা করেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবদুল মান্নান, আইন ও বিচার বিভাগের যুগ্ম-সচিব আবু আহমেদ জমাদার, লিভারেজিং আইসিটি প্রকল্প পরিচালক রেজাউল করিম, সাপোর্ট টু হাইটেক পার্ক প্রকল্পের পিডি এএনএম শফিকুল ইসলাম প্রমুখ। মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন বিসিসি’র পরিচালক জাবেদ আলী সরকার। স্বাগত বক্তৃতা দেন আইসিটি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব গাজী মিজানুর রহমান ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন আইসিটি মন্ত্রণালয়ের উপসচিব বিল্লাল হোসেন।

কর্মশালায় বক্তারা বলেন, তথ্য ও প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে মানুষকে সহজে-সুলভে কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়াই সেবা প্রদান করতে সরকার বিরামহীন প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। এর লক্ষ্য জনগণের ক্ষমতায়নের মধ্য দিয়ে জীবনমানের উন্নয়ন, দারিদ্র দূরীকরণ সর্বোপরি ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীতকরণ। আর এ লক্ষ্য অর্জনে ই-সার্ভিসমূহকে একটি নীতিমালার আওতায় আনা অপরিহার্য।

অনুষ্ঠানটি কমপিউটার জগৎ, ওয়েব টিভি নেক্সট এবং সামহোয়্যার ইন ব্লগ থেকে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

About কমজগৎ ডেস্ক

একটি উত্তর দিন