চট্টগ্রাম আইটি-আইটিইএস জব ফেয়ারে চাকুরি পেল ১৩৩ জন

চট্টগ্রাম আইটি-আইটিইএস জব ফেয়ারে চাকুরি পেল ১৩৩ জন

palokতথ্যপ্রযুক্তি খাতে ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী তরুণ-তরুণী ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের মিলনমেলার মাধ্যমে শেষ হলো দিনব্যাপী “চট্টগ্রাম আইটি-আইটিইএস জব ফেয়ার-২০১৭”। জব ফেয়ার থেকে সরাসরি চাকুরি পেয়েছে ১১৩ জন এবং প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত হয়েছে ৬৯৫ জন চাকুরিপ্রার্থী। বন্দরনগরী চট্টগ্রামের জিইসি মিলনায়তনে আয়োজিত এ চাকুরি মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল-এর আওতায়  লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ, এ্যামপ্লয়মেন্ট এ্যান্ড গভার্ন্যান্স প্রজেক্ট (এলআইসিটি), পিকাবু এবং আর্নস্ট এন্ড ইয়াং যৌথভাবে এ চাকুরি মেলার আয়োজন করে। এ মেলায় চট্টগ্রামের ১৩টি  প্রতিষ্ঠানসহ বাংলাদেশের প্রথম সারির ৫০ টি আইটি কোম্পানির প্রতিনিধিগণ উপস্থিত থেকে চাকুরিপ্রার্থী আগ্রহী তরুণ-তরুণীদের সাক্ষাতকার নেন এবং প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করেন। চাকুরি মেলায় যোগ দেয়ার জন্য গত ১০ দিনে চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে ১০ হাজারের বেশি স্নাতক অনলাইনে নিবন্ধন করেন। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ১১ হাজারের বেশি তরুণ-তরুণী জব ফেয়ার আসেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেন, “ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য হলো- ২০২১ সালের মধ্যে আইটি-আইটিইএস খাতে রপ্তানি আয় ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করা এবং ২০ লক্ষ আইটি পেশাজীবী গড়ে তোলা।এ লক্ষ্য পূরণে আমরা ফেব্রুয়ারিতে ঢাকায় চাকুরি মেলার আয়োজন করেছি। সে ধারাবাহিকতায় আজকের  এ আয়োজন।  আশা করছি আগামীতে এ ধরনের আয়োজন আমরা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিয়ে যাবো।”
এলআইসিটি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. রেজাউল করিম এনডিসি সকাল সাড়ে ৯ টায় জব ফেয়ার উদ্বোধন করেন। বিকেল ৫ টা পর্যন্ত এ মেলায় চাকুরিপ্রার্থীরা সরাসরি চাকুরিদাতাদের সামনে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণের সুযোগ পেয়েছেন। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে কর্মসংস্থান এবং আগামীর সম্ভাবনা বিষয়ে ৪টি বিশেষ সেমিনারের আয়োজন করা হয় জব ফেয়ারে। ক) ICT Career Opportunities শীর্ষক সেমিনারে উপস্থিত ছিলেনই-জেন এর ভাইস চেয়ারম্যান এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের সাবেকনির্বাহী পরিচালক এসএম আশরাফুল ইসলাম, এলআইসিটি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. রেজাউল করিম এনডিসি এবং bdhire.comএর নির্বাহী পরিচালক আবুল কাশেম। খ) Scribing with Google Glass: Career in Medical Outsourcing for Anyone শীর্ষক সেশনটি পরিচালনা করে Augmedix and Square Informatics। গ) Opportunities for Youth in IT-ITES Sector সেশনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক-এর সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান এবং কাজী আইটি সেন্টারের প্রধান নির্বাহী মাইক কাজী। ঘ) Getting the Most out of Your Education and Careers- এ সেশনটি পরিচালনা করবেন আর্নেস্ট এ্যান্ড ইয়াং এর নির্বাহী পরিচালক কমলেশ ভায়াস। প্রতিটি সেশনে আগত দর্শনার্থীদের জন্য কুইজের আয়োজন করা হয়। ওয়ালটনের সৌজন্যে বিজয়ীদের পুরস্কার হিসেবে স্মার্ট ফোন এবং ল্যাপটপ প্রদান করা হয়।
তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য তরুণ-তরুণীদের সামনে অনুপ্রেরণামূক বক্তব্য উপস্থাপন করেন চিত্রনায়ক রিয়াজ। এলআইসিটি প্রকল্পের কম্পোনেন্ট টিম লিডার সামি আহমেদ, আর্নেস্ট এ্যান্ড ইয়াং-এর পরিচালক কামাল মানশারামনি এবং  পিকাবু’র হেড অব মার্কেটিং শাবাব শারেক, এবং তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সংশ্লিষ্ট সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। পুরো অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন স্মিতা চৌধুরী।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন