গ্রামীণফোনের সব বেস স্টেশন থ্রিজি হচ্ছে

গ্রামীণফোনের সব বেস স্টেশন থ্রিজি হচ্ছে

gp ceoচলতি বছরের জুন মাসের মধ্যে সব বেস স্টেশন থ্রিজিতে রূপান্তরের ঘোষণা দিয়েছে গ্রামীণফোন। টেলিনর গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সিগভে ব্রেক্কের উপস্থিতিতে আজ মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে এই ঘোষণা দেন গ্রামীণফোনের সিইও রাজিব শেঠি।
নরওয়েভিত্তিক প্রতিষ্ঠান টেলিনর গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোনের (জিপি) এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৩ সালের শেষ দিকে থ্রিজি চালু করার পর এখন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির ১০ হাজার বেস স্টেশনের মধ্যে পাঁচ হাজার ৮৩১টি স্টেশনকে থ্রিজিতে রূপান্তর করা হয়েছে। বেতার তরঙ্গদৈর্ঘ্য ব্যবহার করে তারহীন উপায়ে যোগাযোগ ব্যবস্থাই বেস স্টেশন।
নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের ওপর জোর দিয়ে গ্রামীণফোনের সিইও বলেন, ২০১৫ সালে তিন হাজার ৪০১টি বেস স্টেশন থ্রিজি সেবাদানের উপযোগী করে তোলা হয়েছে। বছর শেষে সারা দেশে গ্রামীণফোন পাঁচ হাজার ৮৩১টি বেস স্টেশনের মাধ্যমে থ্রিজি সেবা দিচ্ছে। এ বছরের প্রথম প্রান্তিকে আরও এক হাজার ৭০০ বেস স্টেশনকে থ্রিজিতে রূপান্তর করা হবে। জিপির ১০ হাজার বেস স্টেশন দেশের মোবাইল শিল্পে স্থাপিত মোট বেস স্টেশনের ৬০ শতাংশ।
টেলিনর গ্রুপের সিইও সিগভে ব্রেক্কে বলেন, গ্রামীণফোন ভয়েস কমিউনিকেশনের পাশাপাশি ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরিত হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এর অংশ হিসেবে গ্রামীণফোন নেটওয়ার্ক ও ডেটা সেবা খাতে বিনিয়োগের পাশাপাশি টেলিনরের সহায়তায় শিক্ষা, কৃষি ও স্বাস্থ্য খাতে নতুন ডিজিটাল কনটেন্ট ও সমৃদ্ধ ই-সেবা চালু করেছে।
গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও থ্রিজি সেবা বিস্তারকে প্রতিষ্ঠানটির ‘সবার জন্য ইন্টারনেট’ উদ্যোগ বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে একটি উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ বলে উল্লেখ করেন গ্রামীণফোনর সিইও।
গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, ২০১৫ সালের তৃতীয় প্রান্তিক পর্যন্ত এক হাজার ৪৭০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে তারা। এর আগে ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠানটির বিনিয়োগ ছিল এক হাজার ৫ শ ২০ কোটি টাকা।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন