গণমাধ্যমের গতিধারাকে প্রভাবিত করবে ফেইসবুক লাইভ

গণমাধ্যমের গতিধারাকে প্রভাবিত করবে ফেইসবুক লাইভ

fb live1বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের লাইভ ভিডিও সম্পর্কে মাধ্যমটির সিংহভাগ ব্যবহারকারী অল্প-বিস্তর অবগত। ফেইসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ প্রায়ই বিভিন্ন লাইভ ভিডিও পোস্ট করে থাকেন।
জাকারবার্গের পাশাপাশি আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি এই ফিচারটি ব্যবহার করছেন। বাংলাদেশে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে ফিচারটি ব্যবহার করতে দেখা গেছে।
ফিচারটি এখনও পর্যন্ত অল্প কিছু মানুষের মাঝে সীমাবদ্ধ। কয়েকদিন আগে ফেইসবুক ঘোষণা দিয়েছিল এটি সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার। সবকিছু ঠিকঠাকই ছিল। তবে শেষ মুহূর্তে আরও কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও বাড়তি সুবিধা সংযোজনের জন্য আপাতত ফেইসবুকের গবেষণাগারেই রয়েছে এটি। প্রযুক্তি বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ফেইসবুকের এই ফিচারটি গণমাধ্যমের গতিধারাকে অনেক বেশি প্রভাবিত করবে। পাল্টে দেবে অনেক কিছু। মোদ্দা কথা, গণমাধ্যমের জন্য একটি বড় বিষয় হয়ে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ফেইসবুক লাইভ। ফেইসবুক লাইভের প্রভাবের কারণে বিলুপ্তির পথে বসতে পারে টেলিভিশন চ্যানেলগুলো!
ইন্টারনেট ভিত্তিক মিডিয়া কোম্পানি বাজফিড’র প্রেসিডেন্ট জন স্টেইনবার্গ ফেইসবুকের লাইভ স্ট্রিমিংকে টেলিভিশনের জন্য বড় হুমকি হিসেবে অভিহিত করেছেন। বাজফিড’ও ইন্টারনেটে লাইভ ভিডিও ভিত্তিক ব্যবসা পরিচালনা করে। এই প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে সপ্তাহে পাঁচদিন অন্তত একঘণ্টা করে লাইভ ভিডিও সম্প্রচার করছে। এ বছরের শেষের দিকে লাইভ ভিডিও প্রচারের পরিমাণকে প্রতিদিন ৮ ঘণ্টায় উন্নীত করতে চায় প্রতিষ্ঠানটি।
জন স্টেইনবার্গ বলেন, ফেইসবুক লাইভ ভিডিও দিয়ে গণমাধ্যমের নতুন একটি ধারা তৈরি করছে। যা দ্রুত অনেক বেশি জনপ্রিয়তা লাভ করছে। সবাই এ ধরনের মিডিয়ার দিকে ঝুঁকে পড়ছে। ফেইসবুকের পাশাপাশি অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমগুলোও লাইভ ভিডিওর দিকে দিনে দিনে আগ্রহী হয়ে উঠছে। তিনি আরও বলেন, লাইভ ভিডিও টেলিভিশনের জায়গা দখল করবে। আমি মনে করি দীর্ঘ সময় জুড়ে এই লাইভ ভিডিও রাজত্ব করবে, যতদিন পর্যন্ত আরও উন্নত কোনো প্রযুক্তি না আসে। সম্প্রতি ফেইসবুকের প্রধান নির্বাহী এফ৮ ফেইসবুক ডেভলপারদের কনফারেন্সে চ্যাটবক্সকে বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছেন। পাশাপাশি জানিয়েছেন, এতে যুক্ত করা হচ্ছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। অর্থাৎ এটি চলবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে।
চ্যাটবট হচ্ছে একটি সফটওয়্যার প্রোগ্রাম। ফেইসবুক এটির নাম দিয়েছে মেসেঞ্জার প্লাটফর্ম। বক্সে আসা বিভিন্ন মেসেজের উত্তর এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দিতে পারে। এজন্য এটি মানুষের কণ্ঠ নকল করে থাকে। লাইভ ভিডিও’র পাশাপাশি ফেইসবুকে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে ৩৬০ ডিগ্রি এঙ্গেলের ভিডিও’ও। শনিবার এইচবিও চ্যানেলের টিভি প্রোগ্রাম গেইম অব থ্রোনের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে একটি ৩৬০ ডিগ্রি এঙ্গেলের ভিডিও আপলোড করা হয়। যা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ফেইসবুকে সবচেয়ে বেশিবার ভিউ হয়ে রেকর্ড গড়েছে।
লাইভ ভিডিও, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আর ভার্চুয়াল রিয়েলিটি মিলিয়ে ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম টেলিভিশনের অনেক শক্তিশালী বিকল্প হিসেবে তৈরি হচ্ছে। সবকিছু বিশ্লেষণ করে প্রযুক্তি বিশ্লেষকরা বলছেন, অদূর ভবিষ্যতে ভিডিও কেন্দ্রিক সম্প্রচার মাধ্যমে রাজত্ব করবে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের লাইভ ভিডিও।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন