উচ্চমাধ্যমিকে বাধ্যতামূলক ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি’

উচ্চমাধ্যমিকে সব বিভাগের জন্য নতুন করে বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি’ বিষয়। ফলে ৫টি বিভাগের শিক্ষার্থীদের আবশ্যিক বিষয় হবে বাংলা, ইংরেজি এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি।

এছাড়া অন্যান্য বিভাগের পাশাপাশি এবার ‘ইসলাম শিক্ষা’ বিভাগও চালু হচ্ছে উচ্চমাধ্যমিকে। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে এ বিভাগ খোলা হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। এখন থেকে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি ইচ্ছুকরা বিজ্ঞান, মানবিক, ব্যবসায় শিক্ষা, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ও সঙ্গীত বিভাগের সঙ্গে ‘ইসলাম শিক্ষা’ বিভাগেও ভর্তি হতে পারবে।
জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শফিকুর রহমান বলেন, ‘শিক্ষার মান বৃদ্ধি ও প্রযুক্তি জ্ঞান বাড়ানোর জন্য একাদশ শ্রেণীতে নতুন পাঠ্যক্রম যুক্ত হচ্ছে। ৫টি শাখার শিক্ষার্থীদের আবশ্যিক বিষয় হবে বাংলা, ইংরেজি এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি। তবে সব বিষয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র থাকলেও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ে শুধু একটি পত্রই থাকছে। একই সঙ্গে ইসলাম শিক্ষাকে গুরুত্ব দিতেই সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে ইসলাম শিক্ষা বিভাগ খোলা হয়েছে।’
অধ্যাপক শফিকুর বলেন, ‘একাদশ শ্রেণীতে নতুন পাঠ্যক্রম যোগ হলেও শিক্ষার্থীদের ভয় পাওয়ার কারণ নেই। বরাবরের মতোই শিক্ষার্থীরা ভালো করবে। তবে গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ও সংগীত এই দুটি শাখার পাঠ্যক্রম অপরিবর্তিত রয়েছে।’
এনসিটিবির সদস্য অধ্যাপক তাহেরা আক্তার জাহান বলেন, ‘প্রযুক্তি বিষয়ে আগ্রহী করতেই তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়টি সংযুক্ত করা হয়েছে। সব বিষয়ে সপ্তাহে পাঁচটি ক্লাসের নির্দেশনা থাকলেও এই বিষয়ে সপ্তাহে ক্লাস হবে তিনটি। মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থীদেরও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয় পড়তে হবে।’
‘ইসলাম শিক্ষা’ বিভাগ সম্পর্কে তাহেরা আক্তার জাহান বলেন, ‘চলতি বছর থেকে নতুন বিভাগ হিসেবে “ইসলাম শিক্ষা” চালু হচ্ছে। এ শাখায় আবশ্যিক বিষয়ের সঙ্গে ইসলাম শিক্ষা, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি এবং আরবি এই তিন বিষয়ে ৩০০ নম্বর শাখাভিত্তিক আবশ্যিক থাকছে। এ ছাড়া সমাজবিজ্ঞান, সমাজকর্ম, কৃষিশিক্ষা, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান, মনোবিজ্ঞান, যুক্তিবিদ্যা, ভূগোল ও অর্থনীতি বিষয়ের মধ্য থেকে যে কোনো একটি ২০০ নম্বরের চতুর্থ বিষয় হিসেবে নেয়া যাবে।’
তাহেরা আক্তার আরও বলেন, ‘এবার পাঠ্যক্রমে দুটি একেবারেই নতুন পাঠ্য বই থাকছে। ওই দুটি হচ্ছে ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি এবং ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিভাগভিত্তিক আবশ্যিক বিষয় হিসেবে ফিন্যান্স ব্যাংকিং এবং বীমা, ঐচ্ছিক বিষয় হিসেবে ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি পড়ানো হবে।’

সূত্র:  ওয়ান নিউজ বিডি

About বদরুদ্দোজা মাহমুদ তুহিন

একটি উত্তর দিন