ঈদের আগে সাবধান, মোবাইল প্রতারণা বেড়েছে ব্যাপোক হারে

ঈদের আগে সাবধান, মোবাইল প্রতারণা বেড়েছে ব্যাপোক হারে

পবিত্র ঈদুল ফিতর কয়েকদিন পরেই । ঈদকে লক্ষ করে কিছু শ্রেণীর প্রতারক দল মোবাইল ফোনে অভিনব পদ্দতিতে প্রতারণা জাল বুনছে। কোন প্রকার কুইজ বা লটারি খেলা হয়নি, কোন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের বিষয়ও আপনার মনে পড়ছে না, তবুও অকারণেই খুব নামিদামি ব্র্যান্ডের গাড়ি এবং কোটি কোটি ডলার, ইউরো-পাউন্ড বিজয়ী হয়েছেন বলে আপনাকে ই-মেইল কিংবা আপনার মোবাইলে ম্যাসেজ আসছে।

সাবধান: ঈদের আগে মোবাইলে প্রতারণা বেড়েছে, কলসেন্টার, পবিত্র ঈদুল ফিতর, মোবাইল ফোনে, টেলিযোগাযোগ, নামিদামি ব্র্যান্ডের গাড়ি, মোবাইল ম্যাসেজের,

আর অনেকেই আনন্দে আত্মহারা হচ্ছেন যে, কোটি কোটি টাকা মূল্যমানের এসব গাড়ি বা ডলার বিজয়ী হয়েছেন যেনে। আর এদের মধ্যে অনেকেই কিছু না বুঝেই ই-মেইলের বা মোবাইল ম্যাসেজের ঠিকানায় শর্তানুজায়ি বেশ মোটা অঙ্কের টাকা উক্ত পুরস্কার পাওয়ার জন্য পাঠিয়ে দিচ্ছেন। অতঃপর এর ফলে যা পাওয়া যাচ্ছে, তা মহাপ্রতারণা ছড়া আর কিছুই নয়। ইদানিং এমন একাধিক ঘটনার তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে। র‌্যাব-পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ ও টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এসব বিষয়ে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করলেও এর মাঝেই প্রতারকচক্র তাদের তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ প্রতারণায় একাধিক দেশি-বিদেশি চক্র সক্রিয়। এ বিষয়ে সচেতন হতে হবে সবাইকে। অন্যথায় প্রতারকদের খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব খোয়া যেতে পারে।

সাবধান: ঈদের আগে মোবাইলে প্রতারণা বেড়েছে, কলসেন্টার, পবিত্র ঈদুল ফিতর, মোবাইল ফোনে, টেলিযোগাযোগ, নামিদামি ব্র্যান্ডের গাড়ি, মোবাইল ম্যাসেজের,

অনেকেই প্রতারিত হচ্ছেন নানান চক্রের মাধ্যমে কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই। সম্প্রতি এমন একটি ঘটনার মুখোমুখি হয়েছেন লালবাগের বাসিন্দা আশিস ইকবাল। ‘হ্যালো! আমি বাংলালিংকের কলসেন্টার থেকে জাকারিয়া রহমান বলছি। আপনার ব্যবহৃত নম্বরটি লটারিতে পালসার মোটর সাইকেল পেয়েছে। আপনি মোটরসাই কেলের বদলে দুই লাখ ৬২ হাজার টাকা নিতে পারেন। তবে আজ বিকেল পাঁচটার মধ্যেই আপনাকে ট্যাক্সসহ আনুষ্ঠানিকতা মেটাতে হবে।’ খবরটি শুনে খুশি হন আশিস ইকবাল। ওই লটারি নিয়ে তাঁর মনে খটকা নেই। কারণ, রাকিব নামে ওই প্রতারক তাঁর মায়ের নাম, জন্ম তারিখসহ গোপনীয় তথ্য জানিয়েছেন। ইকবালকে জানানো হয়, ২০টি নম্বরে ৩৯ হাজার ২৫০ টাকা ফ্লেক্সিলোড করতে হবে। এগুলো জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের বিভিন্ন হিসাবের মোবাইল ফোন নম্বর। একই সঙ্গে পুরস্কারের অর্থ পাঠাতে আশিস ইকবালের ব্র্যাক ব্যাংকের হিসাব নম্বর এবং তাঁর কর শনাক্তকরণ নম্বরও জেনে নেন কথিত কলসেন্টারের জাকারিয়া। বেলা আড়াইটার মধ্যে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে ১৮টি ফোন নম্বরে এক হাজার টাকা করে মোট ১৮ হাজার এবং আরেকটি নম্বরে ২৫০ টাকা ফ্লেক্সি করেন ইকবাল। এর মধ্যে সাতটি গ্রামীণফোনের, ২০টি বাংলালিংকের, একটি এয়ারটেল এবং একটি রবির সংযোগ। ইকবালের মোবাইল ফোনে এসএমএসে জানানো হয়, ‘ইউর একাউন্ট হ্যাজ বিন রিফিলড সাকসেসফুলি বাই টাকা ২৫,৫৭০। ইউর ট্রানজেকশন আইডি ইজ বিডি ৩০২২১১১২৭০৭৭৩।’ ইকবাল ব্র্যাক ব্যাংকের হিসাবে খোঁজ নিয়ে জানতে পারলেন, সেখানে টাকা যায়নি। ইকবাল অর্থ জমা না হওয়ার বিষয়টি জাকারিয়াকে জানান। জাকারিয়া দ্রুত বাকি অর্থ পরিশোধের তাগাদা দিলে ইকবালের সন্দেহ হয় এবং তিনি আর টাকা ফ্লেক্সি করেননি। কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গেছে। পরে ঘটনাটি সাধারণ ডায়েরি করে বাংলালিংকে জানানো হয়। কর্তৃপক্ষ ‘লটারি চক্রে’ ব্যবহূত  বাংলালিংকের সংযোগগুলো বন্ধের আশ্বাস দেন। একইভাবে গ্রামীণফোন ও রবি কর্তৃপক্ষও তাদের সংযোগ বন্ধে পদক্ষেপ নেয়। কিন্তু সবগুলো নম্বর প্রি-পেইড হওয়ায় শামসের অর্থ আর ফেরত আসেনি। আশিস ইকবালের ব্যক্তিগত তথ্য ওই জাকারিয়া রহমান কোথা থেকে পেল—এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে জানা যায়, কলসেন্টারগুলোতে কাজের জন্য খণ্ডকালীন লোক নিয়োগ করা হয়। এদের কেউ কেউ কোনো তথ্য সংগ্রহ ও তার অপব্যবহার করতে পারে।

সাবধান: ঈদের আগে মোবাইলে প্রতারণা বেড়েছে, কলসেন্টার, পবিত্র ঈদুল ফিতর, মোবাইল ফোনে, টেলিযোগাযোগ, নামিদামি ব্র্যান্ডের গাড়ি, মোবাইল ম্যাসেজের,

এদিকে ই-মেইলে দেশে ও দেশের বাইরে অনেক প্রতারক কোটি কোটি ডলার পুরষ্কারের নামে অভিনব পদ্ধতিতে প্রতারণা করছে। একাধিক ভুক্তভোগীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চক্রটি প্রথমেই কোটি কোটি ডলার, পাউন্ড, ইউরো বা নামিদামি গাড়ি বিজয়ী বলে এসএমএস বা ই-মেইলে তথ্য জানায়। তাতে সেই গ্রাহকের কাছে প্রথমে চাওয়া হয় তার নাম, ঠিকানা ও বয়স। এটি সম্পন্ন করলে পরে চায় ব্যাংকের হিসাব নম্বর। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিদেশি ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খুলতেও বলা হয়। এ প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হলেই চক্রটি পার্সেল রেজিস্ট্রেশন বা প্রক্রিয়াগত ব্যবস্থাপনা বাবদ ১০ থেকে ১৫ হাজার ডলার দাবি করে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ভারতীয় রুপিও দাবি করে তারা।

সাবধান: ঈদের আগে মোবাইলে প্রতারণা বেড়েছে, কলসেন্টার, পবিত্র ঈদুল ফিতর, মোবাইল ফোনে, টেলিযোগাযোগ, নামিদামি ব্র্যান্ডের গাড়ি, মোবাইল ম্যাসেজের,

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক উইং কমান্ডার এটিএম হাবিবুর রহমান এ প্রসঙ্গে বলেন, এটা প্রতারণার একটি কৌশল, যা সাইবার ক্রাইমের একটি অংশ। দেশি-বিদেশি প্রতারকচক্র কিছু মেইল বা ফোন নম্বর টার্গেট করে লোভনীয় নানা তথ্য পাঠাচ্ছে। এ বিষয়ে সবাইকে সচেতন হতে হবে। প্রয়োজনে র‌্যাব-পুলিশ ও বিটিআরসির সহায়তা নেয়া যেতে পারে। এ ব্যাপারে র‌্যাব নিয়মিত মনিটরিং করছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু বকর সিদ্দিকী বলেন, বেশকিছু দিন ধরেই প্রতারকচক্র লোভনীয় তথ্য দিয়ে মেইল বা এসএমএস করছে। এসব বিষয়ে বিটিআরসির মাধ্যমে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে।

About আহমাদুল্লাহ মুক্ত

আহমাদুল্লাহ মুক্ত

একটি উত্তর দিন