ই-কমার্সে দেশের বাইরের বাংলা ভাষাভাষী মানুষকেও টার্গেট করতে হবে: পলক

ই-কমার্সে দেশের বাইরের বাংলা ভাষাভাষী মানুষকেও টার্গেট করতে হবে: পলক

ecab palokশুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্ব বাজারকে বিবেচনায় এনে ই-কমার্স খাতে বিনিয়োগ করতে হবে। দেশের বাইরের বাংলা ভাষাভাষী মানুষকেও টার্গেট করতে হবে।
শনিবার রাজধানীতে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) সদস্যদের সদস্য সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
পলক বলেন, গত ছয় বছরে দেশের মানুষ ই-কমার্স সম্পর্কে একটা ইতিবাচক ধারণা পেয়েছে। সঠিক সেবা দিয়ে সেই ধারণাকে আরও পাকাপোক্ত করতে হবে।
এক বছর আগে ৩০ জন সদস্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে ই-ক্যাব। মাত্র এক বছরের ব্যবধানে বর্তমানে এর সদস্য ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২৩০। শনিবার এসব প্রতিষ্ঠানকে সনদ প্রদান করা হয়।
সনদ পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো যেনো সঠিক সেবা দিতে পারে সে জন্য নজরদারিও করবে বলেও জানিয়েছে ই-ক্যাব। সদস্য না হয়েও কোনো প্রতিষ্ঠান যেনো ই-ক্যাবের সদস্য দাবী করতে না পারে সে জন্য সদস্য ও ই-ক্যাবের দুটি পৃথক ডাটাবেজ করা হয়েছে। যেখান থেকে তা পরীক্ষা করে নেওয়া যাবে।
ই-ক্যাবের সভাপতি রাজীব আহমেদ তার বক্তব্যে ই-কমার্সের কিছু সমস্যার কথা বলেন। তিনি জানান, ই-কমার্সের শতকরা ৮৫ শতাংশ সমস্যা কুরিয়ার নিয়ে। এ সমস্যা সমাধানে প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আব্দুল মান্নান জানান, শুধু সদস্য না বাড়িয়ে ই-কমার্স সেবা প্রদানের মানের দিকে নজর দেওয়া জরুরি।
ই-ক্যাবের যুগ্ম সচিব রেজওয়ানুল হক জামী’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক, এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমেদ, বিসিএসআইআর চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সাবেক সভাপতি ও আনন্দ কম্পিউটারের প্রধান নির্বাহী মোস্তাফা জব্বার, এশিয়ান-ওশেনিয়ান কম্পিউটিং ইন্ডাস্ট্রি অর্গানাইজেশনের (এএসওসিআইও) চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ এইচ কাফি, ধানসিড়ি কমিউনিকেশন লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শমী কায়সার।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন