ই-এশিয়া মেলাতে আসছেন ইন্টেলের ভাইস প্রেসিডেন্ট জন ডেভিস

তথ্যপ্রযুক্তির আন্তর্জাতিক মেলা ই-এশিয়া উপলক্ষে ঢাকাতে হাজির হবেন দেশ ও বিদেশের প্রযুক্তি বিপ্লবের বিখ্যাত রুপকাররা। প্রযুক্তি নির্মান প্রতিষ্ঠান ইন্টেল কর্পোরেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ‘ইন্টেল ওয়ার্ল্ড অ্যাহেড প্রোগ্রাম’ এর প্রধান জন ই. ডেভিস তাদের মধ্যে অন্যতম। ১৯৭৭ সালে ইন্টেলে মান নিয়ন্ত্রন কর্মকর্তা হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন ডেভিস। ১৯৯০ এর দশকে তিনি ইন্টেল কর্পোরেশনের এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। জন ই. ডেভিস ২০০৫ সালে ‘ইন্টেল ওয়ার্ল্ড অ্যাহেড প্রোগ্রাম’ চালু করেন। সারা পৃথিবীর দরিদ্র ও উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন সহায়তা করাই ইন্টেলের এই কার্যক্রমের প্রধান উদ্দেশ্য। ডেভিসের তত্ত্বাবধানেই কলম্বিয়ার কৃষকরা সর্বপ্রথম ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের সুবিধা পায়। ব্রাজিলের আমাজন বনে টেলিচিকিৎসা চালু করা, গুয়েতেমালার শিশুদের জন্য স্বল্পমূল্যেও কম্পিউটার বিতরণের মত কর্মযজ্ঞের গুরু হিসেবে তিনি অধিক পরিচিত। ২০০৮ সালে জন ডেভিস স্বল্প সময়ের জন্য বাংলাদেশে আসেন। বাংলাদেশের গ্রামীণ স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য ইন্টেলের ক্লাসমেট পিসি প্রদানের কার্যক্রম উদ্বোধনের জন্য স্বল্প সময়ের জন্য বাংলাদেশে অবস্থান করেন জন ডেভিস। ‘বিশ্ব প্রযুক্তি নেতা’ সম্মাননা পাওয়া ডেভিস সেসময় বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা ও তরুণ প্রযুক্তিবিদদের দেখা না দিতে পারলেও, এবার রাজী হয়েছেন শিক্ষার্থী ও তরুণদের সময় দিতে।

ই-এশিয়া সম্মেলনের তৃতীয় দিনের একটি বিশেষ অধিবেশন ‘মিট দ্য টেকনোলজি লিডার’ এ ডেভিস তার বেড়ে উঠার গল্প, ইন্টেলের জীবন, তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে তৃতীয় বিশ্বের উন্নয়নের স্বপ্নের কথা শোনাবেন। ইন্টেলের ভাইস প্রেসিডেন্ট জন ডেভিসকে বাংলাদেশী তরুণদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেবেন সবার প্রিয় ব্যক্তিত্ব শিক্ষাবিদ মুহম্মদ জাফর ইকবাল  সম্মেলনের তৃতীয় দিন ৩ ডিসেম্বর সকাল ৯.৩০ থেকে ১১টা পর্যন্ত ডেভিস আড্ডা দিবেন বাংলাদেশী শিক্ষার্থী ও তরুণদের সাথে। সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেইমে এই উন্মুক্ত আড্ডা অনুষ্ঠিত হবে। বিনাখরচে নিবন্ধন করা বাংলাদেশী শিক্ষার্থী ও তরুণদের জন্য উন্মুক্ত ‘মিট দ্য টেকনোলজি লিডার’ অধিবেশন। বিসিএস মেলা, ই-এশিয়া সেক্রেটারিয়েট ছাড়াও অনুষ্ঠানের পুর্বাহ্নে সম্মেলন স্থলে নিবন্ধন করা যাবে। উল্লেখ্য যে, আগামী ১-৩ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠেয় তথ্যপ্রযুক্তির আন্তর্জাতিক মেলা ই-এশিয়া উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশে ‘৫ম ই-এশিয়া’ আয়োজন করছে বিজ্ঞান ও আইসিটি মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)।

প্রেসবিজ্ঞপ্তি

About mehdi

একটি উত্তর দিন