আইএসের বিরুদ্ধে সাইবার হামলায় যুক্তরাষ্ট্র

আইএসের বিরুদ্ধে সাইবার হামলায় যুক্তরাষ্ট্র

ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে এবার সাইবার হামলা শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী। আইএসবিরোধী চলমান অভিযান জোরদারের লক্ষ্যে এই ‘অস্ত্র’ বেছে নিয়েছে তারা। মঙ্গলবার দেশটির এক সামরিক কর্মকর্তা এ কথা জানিয়েছেন।
ইরাক ও সিরিয়ায় আইএসের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের আগস্টে হামলা শুরু করে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট। কিন্তু সামরিক হামলার পাশাপাশি সাইবার হামলা চালানোও জরুরি—এমন কথা মার্কিন কর্মকর্তারা শুরু থেকেই বলে আসছিলেন। কর্মকর্তাদের যুক্তি, সাইবার হামলার মাধ্যমে আইএসের যোগাযোগব্যবস্থাকে দুর্বল করে দেওয়া সম্ভব। এ ছাড়া সদস্য সংগ্রহ করার ক্ষেত্রেও প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা যাবে। কারণ, ইন্টারনেটের মাধ্যমে আইএস অনেক সদস্য সংগ্রহ করে।
ইরাকের রাজধানী বাগদাদে দায়িত্বরত মার্কিন সেনা কর্মকর্তা জেনারেল পিটার গারস্টেন বলেন, ‘আইএসবিরোধী লড়াইয়ে আমরা নিজেদের সাইবার শক্তি প্রয়োগ শুরু করেছি।’ বিস্তারিত না জানিয়ে ওই কর্মকর্তা বলেন, এই প্রয়োগ ‘খুবই কাজে দিচ্ছে।’
চলতি মাসের শুরুতে প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাস্টন কার্টারসহ শীর্ষস্থানীয় মার্কিন কর্মকর্তারা ঘোষণা দেন, আইএসের বিরুদ্ধে অভিযান আরো জোরদার করা হবে। এর মধ্যে সাইবার ‘অস্ত্র’ ব্যবহারের ইঙ্গিতও দেন তাঁরা।
প্রসঙ্গত, মার্কিন সামরিক বাহিনী ও হাতে গোনা কয়েকটি বেসামরিক নেটওয়ার্কের সুরক্ষা দেওয়াই ‘ইউএস সাইবার কমান্ড’-এর দায়িত্ব। তবে প্রয়োজন পড়লে কারো বিরুদ্ধে সাইবার হামলা চালাতে পারবে তারা। সূত্র : এএফপি।

About Sohel Rana

একটি উত্তর দিন